JanaBD.ComLoginSign Up

‘দুই সপ্তাহের সংসারজীবনে আমি অপুর কাছে কৃতজ্ঞ’

বিবিধ বিনোদন 11th Jun 2016 at 4:20pm 353
‘দুই সপ্তাহের সংসারজীবনে আমি অপুর কাছে কৃতজ্ঞ’

সম্প্রতি ঢাকাই ছবির আলোচিত নায়িকা মাহিয়া মাহির সঙ্গে ব্যবসায়ী পারভেজ মাহমুদ অপুর বিয়ে হয়। এর পরদিন থেকেই কয়েকটি গণমাধ্যমে তাঁর একাধিক বিয়ে-সংক্রান্ত কিছু ছবি প্রকাশ হতে থাকে। সেখানে ছবি প্রকাশের পাশাপাশি দাবি করা হয়, এর আগেও একাধিকবার মাহির বিয়ে হয়েছে। মাহিয়া মাহির আগের বিয়ের দাবী করা সেসব ছবি নিয়ে সামাজিক মাধ্যমে ব্যপক তোলপাড়ও শুরু হয়!

সে সময় মাহি ও শাওনকে ঘিরে হাজারো জল্পনা-কল্পনার মধ্যে শাওনের সাথে তার সম্পর্ক নিয়ে মাহি জানিয়েছিলেন, শাওন আমার বন্ধু, স্বামী না। ছোটবেলা থেকে আমরা একসঙ্গে বড় হয়েছি। একই স্কুল-কলেজে পড়েছি। আর ও যদি সত্যি আমার স্বামী হতো, তাহলে কি আমি সাংবাদিক ডেকে ধুমধাম করে বিয়ে করতাম।

মাহি-শাওন প্রসঙ্গে দীর্ঘ নীরবতা কাটিয়ে অবশেষে মুখ খুললেন মাহি

কিন্তু শাওন তো আদালতে কাবিননামা দিয়েছেন এমন প্রশ্ন করা হলে এর জবাবও মাহি দিয়েছেন। মাহি বলেন, এগুলো নিয়ে আমার জানার আগ্রহ নেই। শাওনের সঙ্গে একটা ভুল বোঝাবুঝি হয়েছে, সেটা ঠিকও হয়ে গেছে। আমরা এখন ভালো বন্ধু। প্লিজ, এগুলো নিয়ে আর বাড়াবাড়ি করবেন না। মাহি ও শাওন গুঞ্জনের অবসান হলো শেষ অবধি! সমঝোতায় এলো দু পরিবার

চারিদিকে বিভিন্ন গুজবও ছড়িয়ে পড়েছিল। এর মধ্যে অন্যতম ডিভোর্স। এর জবাবে মাহি বলেন, আমার অনেক শত্রু। এরা আমার সুখ সহ্য করতে পারছে না বলেই এসব রটাচ্ছে। অপু সবকিছু জেনেশুনেই আমাকে বিয়ে করেছে। আমি নায়িকা। অভিনয় করার সময় নায়কদের সঙ্গে অন্তরঙ্গ হতে হয়। শাওনের সঙ্গে তোলা ছবিগুলোও ফাজলামি করে তোলা। অপু সেটা জানে।

বরং আমাকে নিয়ে যখন চারদিকে বাজে বাজে কথা হচ্ছে, তখন ও-ই আমাকে বুঝিয়েছে, মানসিক সাপোর্ট দিয়েছে। এই দুই সপ্তাহের সংসারজীবনে আমি তার কাছে কৃতজ্ঞ। সে আমাকে যতটা ভালোবাসে, অন্য কেউ স্বামীর কাছ থেকে এত ভালোবাসা পায় বলে মনে হয় না। সারা জীবন এক আছি, এক থাকব।

এর আগে গত ২৫ মে মাহির বিয়ে হয় সিলেট নিবাসী কম্পিউটার প্রকৌশলী পারভেজ মাহমুদের সঙ্গে। এর এক দিন পর ২৭ মে বন্ধু শাহরিয়ার আলমের সঙ্গে তাঁর কিছু ছবি কয়েকটি অনলাইন নিউজপোর্টাল এবং ফেসবুকে ছড়িয়ে দেওয়া হয়। সেদিনই রাজধানীর উত্তরা পশ্চিম থানায় মাহিয়া মাহি তথ্যপ্রযুক্তি আইনে শাহরিয়ারের বিরুদ্ধে মামলা করেন। পরে পুলিশ শাহরিয়ারকে গ্রেপ্তার করে দুই দিনের রিমান্ডে নেয়।

৩১ মে রিমান্ড শেষে শাহরিয়ার ইসলামকে আদালতে আনা হয়। আদালত তাঁকে কারাগারে পাঠিয়ে দেন। সেদিন শাহরিয়ারের আইনজীবী বেলাল হোসেন প্রথম আলোকে বলেছিলেন, গত বছরের ১৫ মে শাহরিয়ার ও মাহির বিয়ে হয়। আদালতে বিয়ের কাবিননামাসহ প্রয়োজনীয় সব কাগজ জমা দেওয়া হয়েছে।

Googleplus Pint
Like - Dislike Votes 6 - Rating 5 of 10
Relatedআরও দেখুনঅন্যান্য ক্যাটাগরি

পাঠকের মন্তব্য (0)