JanaBD.ComLoginSign Up

Internet.Org দিয়ে ফ্রিতে ব্রাউজ করুন আমাদের সাইট :) Search করুন , "জানাবিডি ডট কম" পেয়ে যাবেন ।

খুঁটিনাটি কৌশলেই হয়ে উঠুন আদর্শ স্বামী-স্ত্রী

লাইফ স্টাইল 24th Jun 2016 at 3:13pm 404
খুঁটিনাটি কৌশলেই হয়ে উঠুন আদর্শ স্বামী-স্ত্রী

কেবলমাত্র মনের মধ্যে ভালোবাসা পুষে রাখলেই আদর্শ স্বামী-স্ত্রী হওয়া যায় না। সম্পর্কের পরিচর্যা করতে হয় নানাভাবে। কিছু খুঁটিনাটি বিষয় মেনে চলেই নিজেকে আদর্শ সঙ্গী-সঙ্গিনীতে পরিনত করা যায়।

দেখে নিন বিশেষজ্ঞের টিপস....

১. কথা বলার সময়... : স্বামী বা স্ত্রী সারাদিন স্মার্টফোন নিয়েই পড়ে থাকেন? বিরক্তিকর বিষয় নিয়ে কিছু বলতে চান? এ ধরনের আলাপচারিতায় 'তুমি এমন করছো' ধরনের কথা না বলে 'আমার মনে হয়' ধাঁচের কথা বলুন। এতে তিনি মনে আঘাত পাবেন না।

২. মাঝে মধ্যে পয়সা বিষয়ে আলাপ করুন : সম্পর্কে নেতিবাচক প্রভাবকের অন্যতম একটি হলো অর্থনৈতিক বিষয়। প্রতিনিয়ত আয় বা খরচের হিসাব নিয়ে কথা বললে অশান্তির সৃষ্টি হবে। আবার একেবারেই না বলা ভালো না। তাই মাঝে মাঝে এ নিয়ে গঠনমূলক আলোচনা করুন। এ নিয়ে কেউ সমস্যায় থাকলে তা মিটিয়ে ফেলা যাবে।

৩. দয়াশীলতা ও পরিতৃপ্তির চর্চা করুন : দুজনই একে অপরের প্রতি দয়াশীলতা প্রদর্শন করুন। একে অপরের পরিতৃপ্তির কারণ হয়ে যান। হঠাৎ করে স্ত্রীকে একটি পোশাক কিনে দিন। এতে তিনি তৃপ্তিবোধ করবেন। এ ধরনের চর্চা সম্পর্কের যত্নআত্তি করে।

৪. যা প্রয়োজন তা সরাসরি বলুন : বাড়িতে প্রচুর কাজ। আপনার একার পক্ষে করা সম্ভব হচ্ছে না। কাজেই সরাসরি স্বামীর সহায়তা চেয়ে নিন। ঘুরিয়ে পেঁচিয়ে কথা বলবেন না। কেউ নিজে থেকে করবে আশা করে বসে থাকবেন না। এতে অভিযোগের সৃষ্টি হবে।

৫. মানুষের সামনে কটাক্ষ করবেন না : আত্মীয়-স্বজনদের সামনে বা বন্ধুদের আড্ডায় একে অপরের সমালোচনায় মেতে উঠবেন না। বিশেষ কোনো বিষয় নিয়ে কটাক্ষ করবেন না। এগুলো আলাদাভাবে নিজেরাই সেরে ফেলুন।

৬. একসঙ্গে পরিকল্পনা করুন : যাই করেন না কেন, এক সঙ্গে পরিকল্পনার কাজটি সেরে ফেলুন। এতে উভয়ের মতামত মূল্য পায়। কেউ একজন দারুণ কোনো পরিকল্পনা করে অপরকে চমকে দিতে পারেন। এতে হৃদ্যতা বৃদ্ধি পাবে।

৭. ব্যক্তিগত স্বাধীনতা বজায় রাখুন : প্রত্যেক মানুষের নিজস্ব স্বাধীনতা রয়েছে। যার যার স্বাধীনতা পালন করতে দেওয়া উচিত। কেউ কারো একান্ত ব্যক্তিগত ইচ্ছার বাধা হয়ে দাঁড়ানো উচিত নয়।

৮. সব ব্যর্থ হলে হাসুন : বার বার সাবধান করা সত্ত্বেও স্বামী বা স্ত্রী সেই ভুল কাজটি করেই ফেললেন। বার বার শুধরে দেওয়ার পরও যদি ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটে, তবে মারাত্মক পদক্ষেপ নেওয়ার প্রয়োজন নেই। কাজেই এ ক্ষেত্রে হাসি ব্যবহার করুন। কৌতুকপূর্ণ বিবাদ দারুণ উপভোগ্য হতে পারে। সমাধান চলে আসবে।

Googleplus Pint
Like - Dislike Votes 5 - Rating 4 of 10
Relatedআরও দেখুনঅন্যান্য ক্যাটাগরি

পাঠকের মন্তব্য (0)