JanaBD.ComLoginSign Up

Internet.Org দিয়ে ফ্রিতে ব্রাউজ করুন আমাদের সাইট :) Search করুন , "জানাবিডি ডট কম" পেয়ে যাবেন ।

দাম্পত্য সম্পর্ককে সজীব রাখতে কয়েকটি গোপন পরামর্শ

লাইফ স্টাইল 25th Jun 2016 at 2:20pm 330
দাম্পত্য সম্পর্ককে সজীব রাখতে কয়েকটি গোপন পরামর্শ

প্রায়ই দেখা যায়, বিয়ের প্রস্তুতি থেকে শুরু করে বিয়ের দিন পর্যন্ত যে কারো মাঝে যে টানটান উত্তেজনাপূর্ণ ভাব বিরাজ করে বিয়ের পরপরই তার মৃত্যু ঘটে। প্রতিদিনের একঘেয়ে রুটিনের ভিড়ে ভালোবাসার অনুভুতিটুকুও হারিয়ে যায়। আবেগ, যত্ন, সহনশীলতা সবই যেন জানালা দিয়ে পালায়; আর রেখে যায় একগুচ্ছ প্রশ্ন। এমনকি বিয়ের পরে যে প্রশ্নটি সবচেয়ে বড় হয়ে দেখা দেয় তা হলো- ভালোবাসা বলে আসলে কিছু আছে কি? শুরু হয় কুৎসিত সব তর্কবিতর্ক এবং পরস্পরের প্রতি সহনশীলতার ঘাটতি দেখা দেয়।

আর বর্তমানের বাস্তব জীবন ও সামাজিক জীবনের মধ্যকার একটি বড় বৈপরিত্য হলো, একদিকে সামাজিক যোগাযোগের নেটওয়ার্কগুলোতে নববিবাহিত যুগলদের রমরমা দাম্পত্য জীবনের ছবির ছড়াছড়ি। কিন্তু অন্যদিকে, শহুরে জনজীবনে বিয়ে বিচ্ছেদের হার বেড়েই চলেছে। যে রকমটা এর আগে আর কখনো দেখা যায়নি।

দাম্পত্য সম্পর্ককে সব সময়ের জন্য সজীব রাখতে এখানে রইলো কয়েকটি বিজ্ঞানসম্মত পরামর্শ....

আপনার চিন্তাগুলো লিখে উপস্থাপন করুন
একটা বিষয় খুবই গুরত্বের সঙ্গে বিবেচনায় নিয়ে সব সময় মনে রাখবেন যে, আপনি চাইলেই আপনার সঙ্গী বা সঙ্গিনীকে পুরোপুরি পাল্টে ফেলতে পারবেন না। বিয়ের পরে এই বিষয়টি নিয়েই সবচেয়ে বেশি বিরোধের সৃষ্টি হয়। আমরা যেভাবে ঠিক মনে করি সেভাবেই আমাদের সঙ্গী বা সঙ্গিনীকে বদলে ফেলতে চাই।

কিন্তু আমরা একটি বিষয় ভুলে যাই যে, অপরজনেরও পুরোপুরি ভিন্ন মতাদর্শ, ভিন্ন ভাবে বেড়ে ওঠা ও জীবন সম্পর্কে ভিন্ন দৃষ্টিভঙ্গি থাকতে পারে। এমনও হতে পারে এই ভিন্নতার জন্যই হয়তো আপনারা একে অপরের প্রেমে পড়েছেন। কিন্তু বিয়ের কিছুদিন যেতে না যেতেই আপনারা পরস্পরের এই ভিন্নতাকেই ঘৃণা করতে শুরু করলেন।

সুতরাং দাম্পত্য সম্পর্ক টিকিয়ে রাখতে গেলে প্রথমেই যে বিষয়টিকে প্রধান নীতি হিসেবে মেনে নিতে হবে তা হলো- একে অপরকে সরাসরি পুরোপুরি বদলে ফেলার চেষ্টা করা যাবে না। তবে একটু ভিন্নভাবে চেষ্টা করে দেখা যেতে পারে। যেমন একটি তাজা ফুলের তোড়ার সঙ্গে আপনি এই গোপন ম্যাসেজটি, ''আমি তোমার মতামতকে পুরোপুরি শ্রদ্ধা করি। কিন্তু আমার মতটাকেও যদি তুমি বিবেচনা করে দেখতে তাহলেও হয়তো ভালো হতো'', লিখে সঙ্গী বা সঙ্গিনীর কাছে উপস্থাপন করুন।

তাজা ফুল শুধু আপনাদের মধ্যকার নেতিবাচক দিকগুলোকে হালকা করেই নিয়ে আসবে না বরং এই ধরনের লেখালেখির অভ্যাস এবং আপনার হৃদয়ে ঠিক কী আছে তা জানান দেওয়ার মাধ্যমে আপনার প্রচুর সময় বেঁচে যাবে এবং নিজের মতো প্রতিষ্ঠার কষ্টকর প্রচেষ্টা ও ঝগড়া-বিবাদ থেকেও রেহাই দিবে।

বিয়ের আগের ও পরের ছবি ফ্রেমবন্দি করে রাখুন
আমরা অনেক সময় কোনো বিনিয়োগ ছাড়াই (হোক তা আবেগগত, মানসিক বা শারীরিক) ঠিক প্রথম দিন থেকেই কোনো সম্পর্ক থেকে অনেক বেশি বেশি পাওয়ার প্রত্যাশা শুরু করি। যা একদমই ঠিক নয়। বিয়ের পরে আসলে জীবনে একটা বড় ধরনের উল্লম্ফন ঘটে। ওই উল্লম্ফনের সঙ্গে তাল মিলাতে ভালোবাসার রূপে প্রচুর বিনিয়োগ করতে হবে।

প্রবেশপথে সুরেলা ঘণ্টা ঝুলান
আপনি যাকে বিয়ে করেছেন তিনি তার অতীত জীবন থেকে আহরিত অসংখ্য শক্তিতে ঘেরা আছেন। এ ক্ষেত্রে আপনাকে তার মধ্যে নতুন স্মৃতির রূপে নতুন নতুন শক্তি প্রবেশ করাতে হবে যা তার অতীত জীবনের শক্তিগুলোকে ধুয়ে মুছে দিবে। অতীতের ওই শক্তিগুলোই আপনাদের দুজনের মধ্যে ভালোবাসার সঠিক প্রবাহ সৃষ্টির ক্ষেত্রে বাধা সৃষ্টি করছে। ঘরের ঠিক প্রবেশ পথের ওপরই সুরেলা ঘণ্টা ঝুলিয়ে দিন। একটু ছোঁয়াতেই ওই ঘণ্টাগুলোতে যে সুর ঝংকার উঠবে তা থেকে ভারসাম্যপূর্ণ শক্তি নির্গত হয়ে মস্তিষ্কে বিস্ময়কর প্রভাব ফেলতে সক্ষম হবে।

প্রবেশপথে একটি প্রজাপতির ছবি স্থাপন করুন
আমাদের প্রবেশপথ প্রায়ই বাইরে থেকে আসা অজানা শক্তিতে পূর্ণ হয়ে থাকে। এ থেকে বাঁচতে হৃদয় ছোঁয়া কোনো অনুপ্রেরণাদায়ী বার্তাসহ প্রবেশপথে একটি প্রজাপতির ছবি স্থাপন করতে পারেন। এটি ঘরে প্রবেশ বা বাহির হওয়ার সময় আপনার বা আপনার সঙ্গী-সঙ্গিনীর চিন্তার ওপর ইতিবাচক প্রভাব ফেলবে।

Googleplus Pint
Like - Dislike Votes 2 - Rating 5 of 10
Relatedআরও দেখুনঅন্যান্য ক্যাটাগরি

পাঠকের মন্তব্য (0)