JanaBD.ComLoginSign Up

Internet.Org দিয়ে ফ্রিতে ব্রাউজ করুন আমাদের সাইট :) Search করুন , "জানাবিডি ডট কম" পেয়ে যাবেন ।

সম্পর্কের দেখভালে শীর্ষ ৭ নিয়ম

লাইফ স্টাইল 8th Jul 2016 at 2:03pm 374
সম্পর্কের দেখভালে শীর্ষ ৭ নিয়ম

সম্পর্কটাকে পরিচর্যা করতে বেশ কিছু নিয়ম-কানুন মেনে চলতে হয়। যদিও এ বিষয়ে কোনো লিখিত সংবিধান নেই। তবে অভিজ্ঞতার আলোকে দীর্ঘদিন ধরে মানুষ ইতিবাচক কিছু নিয়মের সন্ধান পেয়েছেন। এ ছাড়া বিশেষজ্ঞদের গবেষণা তো চলছেই। ভালোবাসার জোয়ারে ভাসতে হাল ছাড়লে চলবে না। ঝামেলায় পড়তে না চাইলে কয়েকটি নিয়মে সেঁটে থাকুন।

সম্পর্কের দেখভালে শীর্ষ ৭ নিয়ম। আসুন দেখে নিই....

১. কিছু বিষয় আপনারা নিশ্চয়ই একজন অপরের কাছে পরিষ্কার করে দিয়েছেন। কে কি পছন্দ করেন ইত্যাদি বিষয়ে কিছু তথ্যের জানান দিতে হয়। রাত জেগে বন্ধুদের সঙ্গে আড্ডা দেওয়া যাবে না প্রেমিকের বা প্রেমিকা গভীর রাতে কারো সঙ্গে কথা বলতে পারবেন না ইত্যাদি। আপনার এমন কোনো সমস্যা থাকলে এমন কিছু করতে যাবেন না যা অপরকে একই কাজ করতে উৎসাহিত করে। দুজনকেই দুজনের বাধানিষেধ মেনে চলতে হবে।

২. যেকোনো মানুষের জীবনে বন্ধু অনেক গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। কিন্তু যে সময়টিতে মানুষ কোনো সম্পর্কে যুক্ত হয় তখন দুজনই যার যার বন্ধুদের কথা যেন ভুলে যায়। দুজন একসঙ্গে সময় কাটাতে বন্ধুদের এড়িয়ে চলতে শুরু করেন। এমন কাজ করতে যাবেন না। দুজনকেই সারাজীবন বন্ধু নিয়ে চলতে হবে। কাজেই তাদের থেকে দূরে থাকার ভুল করবেন না।

৩. দুজনের মধ্যে হৃদয়ের যোগাযোগ সৃষ্টি করতে হবে। আপনি সঙ্গী-সঙ্গিনীকে তখনই কিছু বলবেন যখন তা মন থেকে বলতে চান। নিজের কাছে যা অর্থপূর্ণ তা নিয়ে সিরিয়াসলি কথা বলুন। আর সব স্পষ্টভাবে তুলে ধরবেন।

৪. যখন সম্পর্কে জড়িয়েছেন, তখন তৃতীয়জনের অনাকাঙ্ক্ষিত হস্তক্ষেপ থেকে সম্পর্ককে দূরে রাখুন। নয়তো কেবল দ্বন্দ্ব তৈরি হবে। সাধারণত ঝামেলা তৈরি হলেও তৃতীয় কারো আগমন ঘটে। অথচ বেশিরভাগ সমস্যাই নিজেরাই মিটিয়ে ফেলা যায়। কাজেই দুজন থাকতে অন্যদের এসব বিষয়ে টেনে আনবেন না।

৫. প্রতারণার আশ্রয় নেবেন না। একঘেয়েমি আসলে তার সমাধান প্রতারণা নয়। এটা সম্পর্ক ভাঙনের শক্তিশালী কারণ। যদি সমস্যা থেকেই থাকে তবে তা নিয়ে খোলামেলা আলোচনা করুন। দুজনের মধ্যে স্বচ্ছতা থাকা জরুরি।

৬. তুলনা করতে যাবেন না। আপনার সাবেক প্রেমিক-প্রেমিকার সঙ্গে বর্তমানে যার সঙ্গে জুড়ে রয়েছেন তার তুলনা করবেন না। প্রত্যেক মানুষের আলদা বৈশিষ্ট্য রয়েছে। এগুলো মেনে নিতে হবে। যাকে নিয়ে আছেন তার সঙ্গেই সুখী হওয়ার চেষ্টা করুন।

৭. একে অপরের খেয়াল রাখুন। নয়তো অন্য কেউ এ দায়িত্ব পেত পারেন। আপনারা দুজন জীবনে চলার পথের সঙ্গী। একের সমস্যায় অন্যজন এগিয়ে যাবেন। কিন্তু কেউ এড়িয়ে যেতে থাকলে সেখানে শূন্যতা সৃষ্টি হবে। সেখানে তৃতীয় কেউ চলে আসবে। তখন দারুণ টানাপড়েন তৈরি হবে।

Googleplus Pint
Like - Dislike Votes 5 - Rating 4 of 10
Relatedআরও দেখুনঅন্যান্য ক্যাটাগরি

পাঠকের মন্তব্য (0)