JanaBD.ComLoginSign Up
জানা হবে অনেক কিছু, চালু হয়েছে জানাবিডি (JanaBD) এন্ডয়েড এপস । বিস্তারিত জানুন..
Internet.Org দিয়ে ব্রাউজ করুন আমাদের সাইট ফ্রী , "জানাবিডি ডট কম"

ক্রিকেটার একজনই, গায়ে ভিন্ন দুটি দেশের জার্সি

ক্রিকেট দুনিয়া 9th Jul 2016 at 6:16pm 1,022
ক্রিকেটার একজনই, গায়ে ভিন্ন দুটি দেশের জার্সি

নাটকীয়তা আর অনিশ্চয়তার খেলা ক্রিকেট। ২২ গজের পিচে ব্যাটে বলে বিস্ময়কর কত কিছুই না হয়ে থাকে! যেন বিস্ময়ের কোন কমতি নেই। তবে ২২ গজের বাইরেও ক্রিকেটকে ঘিরে বিস্ময়কর অনেক ঘটনাই আছে যেটা হয়তো আপনার অজানা।

একদেশের নাগরিক অন্যদেশের নাগরিকত্ব নিয়ে ক্রিকেটে অংশ নেওয়াটা নতুন কোন খবর নয়। অন্য দেশের নাগরিকত্বে সেই দেশের হয়ে খেলে সুখ্যাতি পাওয়া ক্রিকেটারের সংখ্যাটাও কম নয়। তেমনি একই ক্রিকেটারের দু’টি দেশের হয়ে খেলার নজিরটাও নতুন নয়।

ভিন্ন ভিন্ন দু’টি দেশের জাতীয় দলের জার্সি গায়ে খেলা ক্রিকেটারদের নিয়ে আমাদের আজকের আয়োজন।

চলুন জেনে নেয়া যাক দু’দেশের হয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশ নেওয়া ক্রিকেটারদের সম্পর্কে.....

ডার্ক ন্যানেস
জন্ম অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্নে। খেলছেন অস্ট্রেলিয়ার জাতীয় দলের হয়ে। কিন্তু অস্ট্রেলিয়া ছাড়াও নেদারল্যান্ডের হয়েও খেলার সুযোগ হয়েছে বাঁহাতি এই পেসারের। বাঁ-হাতি এই পেসারের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক হয়েছিল নেদারল্যান্ডসের জাতীয় দলের হয়ে।

২০০৯ সালের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি ম্যাচ দিয়ে অভিষেক হয় তার। অভিষেক ম্যাচে চার ওভার বল করে ৩০ রান দিলেও কোন উইকেট নিতে পারেননি ন্যানেস। নেদারল্যান্ডসের হয়ে দু’টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছেন তিনি।

এরপর সুযোগ পান অস্ট্রেলিয়া দলে। ২০০৯ সালেই অজিদের হয়ে ফের মাঠে নামেন এই বোলার। অস্ট্রেলিয়ার হয়ে ১৬টি-টোয়েন্টি ও একটি ওয়ানডে ম্যাচ খেলেছেন ন্যানেস। অস্ট্রেলিয়া জাতীয় দলের হয়ে সর্বশেষ খেলেছেন ২০১০ সালে। ১৮টি-টোয়েন্টিতে তার উইকেট সংখ্যা ২২টি ও স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে একমাত্র ওয়ানডেতে নিয়েছেন একটি উইকেট।

এউইন মরগ্যান
এউইন মরগ্যান আয়ারল্যান্ডে জন্মগ্রহণকারী ইংল্যান্ড জাতীয় দলের ক্রিকেটার। বর্তমানে টেস্ট, ওয়ানডে এবং টি-টোয়েন্টি তিন ফরম্যাটের ক্রিকেটেই ইংল্যান্ড জাতীয় দলের সদস্য বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান।

বর্তমানে ইংল্যান্ডের হয়ে খেললেও বাঁ-হাতি এই ক্রিকেটারের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক হয় আয়ারল্যান্ডের হয়ে। ২০০৬ সালে স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে অভিষেক ম্যাচেই ৯৯ রানের দুর্দান্ত এক ইনিংস খেলেন। ইংল্যান্ডের আগে আয়ারল্যান্ডের হয়ে খেলেছেন ২৩টি আন্তর্জাতিক ম্যাচ।

পরবর্তীতে খেলছেন ইংল্যান্ডের হয়ে। ২০০৯ সালে ইংল্যান্ড জাতীয় দলে সুযোগ পান মরগ্যান। বর্তমানে তিনি ইংল্যান্ডের ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি দলের অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করছেন।

এডজয়েস
এড জয়েস ডাবলিনে জন্মগ্রহণকারী একজন আইরিশ ক্রিকেটার। কিন্তু তিনি আয়ারল্যান্ড ও ইংল্যান্ডের জাতীয় ক্রিকেট দল- উভয় দলের জার্সি গায়েই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলেছেন।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ২০০৬ সালের ১৫ জুন ইংল্যান্ডের হয়ে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে অভিষেক হয়েছিল জয়েসের। এই ক্রিকেটার ইংল্যান্ডের হয়ে ১৭টি ওয়ানডে ও দু’টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছেন।
এরপর ২০১১ সালে আয়ারল্যান্ডের হয়ে নাম লেখান জয়েস। বাঁহাতি ব্যাটিংয়ে অভ্যস্ত জয়েস মাঝেমধ্যে ডানহাতে মিডিয়াম পেস বোলিংও করে থাকেন। আয়ারল্যান্ড জাতীয় দলের হয়ে তিনি ২২টি ওয়ানডে ও ১১টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছেন। তাকে আয়ারল্যান্ডের ক্রিকেটের সেরা ক্রিকেটারদের একজন হিসেবে গণ্য করা হয়ে থাকে।

বয়েড র‍্যাঙ্কিন
বয়েড র‍্যাঙ্কিন আয়ারল্যান্ডে জন্মগ্রহণকারী একজন ক্রিকেটার। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ইংল্যান্ড এবং আয়ারল্যান্ড- উভয় দেশের জাতীয় দলের হয়েই ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট খেলছেন ডানহাতি এই মিডিয়াম ফাস্ট বোলার।

২০০৭ সালে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে তার অভিষেক হয় আয়ারল্যান্ডের হয়েই। আয়ারল্যান্ডের হয়ে ৩৭ ওয়ানডেতে ৪৩টি ও ১৫টি-টোয়েন্টি ম্যাচে নিয়েছেন মোট ১৭টি উইকেট।

এরপর ২০১৩ সালে ইংল্যান্ডের জার্সি গায়ে তোলেন এই ক্রিকেটার। ইংলিশদের হয়ে সাতটি ওয়ানডে, দু’টি টি-টোয়েন্টি ও একটি টেস্টসহ ১০টি আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেছেন ৩১ বছর বয়সী এই ক্রিকেটার।

তবে সর্বশেষ ভারতে অনুষ্ঠিত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ফের আয়ারল্যান্ডের হয়ে খেলেছেন এই ডানহাতি পেসার।

লুক রঞ্চি
লুক রঞ্চি বর্তমানে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট দলের হয়ে খেলছেন। তিনি মূলত উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান। তবে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অস্ট্রেলিয়া এবং নিউজিল্যান্ড উভয় দেশের জাতীয় দলের হয়ে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট খেলার সুযোগ হয়েছে নিউজিল্যান্ডে জন্মগ্রহণকারী এই ক্রিকেটারের।

২০০৮ সালে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে তার অভিষেক হয়েছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে। স্বাগতিক ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজের একমাত্র টি-টোয়েন্টিতে অস্ট্রেলিয়ার জার্সি গায়ে অভিষেক হয় এই উইকেটরক্ষকের। কিন্তু এরপর দীর্ঘদিন ছিলে ক্রিকেটের বাইরে। তবে ২০১৩ সালে নিউজিল্যান্ডের জার্সি গায়ে তুলে ফের ক্রিকেটে ফেরেন ৩৫ বছর বয়সী এই ক্রিকেটার।

জানা হবে অনেক কিছু, চালু হয়েছে জানাবিডি (JanaBD) এন্ডয়েড এপস । বিস্তারিত জানুন..

Googleplus Pint
Like - Dislike Votes 8 - Rating 3.8 of 10
Relatedআরও দেখুনঅন্যান্য ক্যাটাগরি

পাঠকের মন্তব্য (0)