JanaBD.ComLoginSign Up

ব্যাট-প্যাড তুলে রাখার সিদ্ধান্ত দিলশানের

ক্রিকেট দুনিয়া 25th Aug 2016 at 9:37pm 406
ব্যাট-প্যাড তুলে রাখার সিদ্ধান্ত দিলশানের

রোববার ডাম্বুলায় তিলকরত্নে দিলশান তার ক্যারিয়ারের শেষ ওয়ানডে ম্যাচ খেলবেন। আর ৯ সেপ্টেম্বর নিজের ক্যারিয়ারের শেষ টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলবেন।

এরপর স্বযত্নে তুলে রাখবেন নিজের ব্যাট ও প্যাড জোড়া। ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি থেকে অবসর নিবেন।

অবশ্য তার অবসরের জন্য নির্বাচকরা আগে থেকেই চাপ দিয়ে আসছিলেন দিলশানকে। কিন্তু তিনি এখনই অবসরে যেতে চাচ্ছিলেন না। কারণ তার সাম্প্রতিক সময়ের পারফরম্যান্স খুব একটা খারাপ ছিল না।

২০১৩ সালে তার ওয়ানডেতে গড় রান ছিল ৪৯.১৮। ২০১৫ সাল ছিল অসাধারণ। গেল বছর তিনি ওয়ানডেতে ৫২.৪৭ গড়ে ১ হাজার ২০৭ রান করেছিলেন। টি-টোয়েন্টিতেও তিনি ছিলেন শ্রীলঙ্কার টপ স্কোরার। ফিল্ডার হিসেবেও তিনি এখনো অসাধারণ।

কিন্তু অধিনায়ক অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস ও নির্বাচকরা ২০১৯ বিশ্বকাপকে টার্গেট করে দল গোছাতে চাচ্ছেন। সে কারণে দিলশানের অবসর নেওয়ার ক্ষেত্রে একটা চাপ তৈরি হয়েছে। আর অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে প্রথম দুটি ওয়ানডেতে ব্যাট হাতে তিনি সুবিধা করতে পারেননি। সে কারণে অবসরের সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেছেন।

অবশ্য দিলশানের শূন্যস্থান পূরণের জন্য শ্রীলঙ্কা দলে তরুণ ব্যাটসম্যানরা আছেন। উদ্বোধনী জুটিতে ব্যাট করার ক্ষেত্রে আছেন কুশাল পেরেরা ও দানুস্কা গুনাথিলাকা। আছেন ধনঞ্জয় ডি সিলভাও।

অবশ্য দিলশান ১৯৯৯ সাল থেকে প্রায় এক দশক লোয়ার মিডল অর্ডারে ব্যাট করেছেন। কিন্তু সীমিত ওভারের ক্রিকেটে নিজের ধারাবাহিকতা ও পারফরম্যান্সের কারণে ২০০৯ সালে উদ্বোধনী জুটিতে ব্যাট করতে শুরু করেন।

টপ অর্ডারে আসার পর তিনি এক বর্ষ পঞ্জিকায় ১ হাজার রানও করেছেন। টপ অর্ডারে আসার পর ২০০৯ থেকে ২০১৫ সাল পর্যন্ত এক বর্ষ পঞ্জিকায় কখনোই তিনি ৮০০ এর নিচে রান করেননি। সনাথ জয়সুরিয়া, কুমার সাঙ্গাকারা ও মাহেলা জয়াবর্ধনের পর চতুর্থ কোনো শ্রীলঙ্কান ক্রিকেটার হিসেবে তিনি ওয়ানডেতে ১০ হাজার রানের মাইলফলক স্পর্শ করেন।

টি-টোয়েন্টিতেও তিনি গেল ছয় বছর ধরে শীর্ষস্থানীয় একজন ক্রিকেটার। ক্রিকেটের তিন ফরম্যাটেই সেঞ্চুরি হাঁকানো সীমিত সংখ্যক ক্রিকেটারের মধ্যে তিনি একজন। ২০১১ সালে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে পাল্লেকেলেতে টি-টোয়েন্টিতে সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছিলেন তিনি। তার নিজস্ব স্কুপের (দিলস্কুপ) জন্যও তিনি বিখ্যাত।

দিলশান ২০১০ সালের মে মাস থেকে ২০১২ সালের জানুয়ারি পর্যন্ত শ্রীলঙ্কা দলের অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করেছেন। ব্যাটিংয়ের পাশাপাশি বোলিংয়েও তিনি বেশ পারঙ্গম। তার অফস্পিন দিয়ে ওয়ানডেতে এ পর্যন্ত ১০৬টি উইকেট নিয়েছেন।

কিন্তু খেলা চালিয়ে যেতে চাইলেও শ্রীলঙ্কার নির্বাচক ও অধিনায়কের জন্য অবসর নিতে বাধ্য হলেন বর্তমান ক্রিকেটের অন্যতম সেরা এই অলরাউন্ডার।

তথ্যসূত্রঃ কালের কন্ঠ

Googleplus Pint
Like - Dislike Votes 7 - Rating 4.3 of 10
Relatedআরও দেখুনঅন্যান্য ক্যাটাগরি

পাঠকের মন্তব্য (0)