JanaBD.ComLoginSign Up

অসুস্থতাকে বিদায় করার ৫ উপায়

সাস্থ্যকথা/হেলথ-টিপস 28th Aug 2016 at 7:05am 229
অসুস্থতাকে বিদায় করার ৫ উপায়

বিভিন্ন ধরণের শরীরচর্চা ও যোগব্যায়াম আমাদের শরীরকে ফিট রাখতে সাহায্য করে। এছাড়াও এর কিছু উপায় রয়েছে, যা অবলম্বন করলে আমাদের শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা আরও বেশি বৃদ্ধি পাবে। নিম্নে সে কাজগুলো বর্ণনা করা হল-

# দুপুরে ঘুমানো:
ডাক্তারেরা বলেন, দুপুরের সময় ঘুমানোর সবচেয়ে সেরা সময় হল দুপুর ১ টা থেকে ৩টার মধ্যে। এ সময়ে আমাদের শরীরের বিশ্রাম নেয়া অনেক জরুরী। ঘুমের কারণে আমাদের শরীরের ইমিউন কোষের সংখ্যা ও কার্যকারিতা বৃদ্ধি পায়। কম ঘুমের কারণে হৃদরোগের ঝুঁকি বৃদ্ধি পায়। তাই, যারা দিনে ঘুমানোর সময় পান না, তারা রাতে পর্যাপ্ত পরিমাণ অবশ্যই ঘুমানোর চেষ্টা করেন।

# দই খান:
যে কোন ধরণের ডায়েট দই ছাড়া অসম্পূর্ণ মনে হয়। দইয়ে বিভিন্ন ধরণের ভাল ব্যাকটেরিয়া রয়েছে যা অনেক গ্যাস্ট্রোইনটেস্টাইনাল অবস্থার উপর একটি অনুকূল প্রভাব আছে। এটি রক্তচাপ কমায়, কলেস্টেরল হ্রাস করে এবং ইমিউন সিস্টেম জোরদার করতে সাহায্য করে। প্রতিদিন অন্তত একবার দই খাওয়া প্রয়োজন এর সুফল ভোগ করার জন্য।

# পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি পান করুন:
পানি পান করার কারণে আমাদের হৃদরোগের ঝুঁকি ২০ থেকে ৫০ শতাংশ পর্যন্ত কমে যায়। জাতীয় ইনস্টিটিউট পরিচালিত এক সমীক্ষা অনুযায়ী , অ্যালকোহল এর অপব্যবহার এবং মদ্যাশক্তি গ্রহণের পরও যারা পরিমিতরূপে ঘন ঘন পানি পান করেন তাদের অপেক্ষাকৃত কম হাসপাতালে যাবার প্রয়োজন হয় এবং সাধারণ জনসংখ্যার তুলনায় তারা কম প্রতিবন্ধী হয়।

# অল্প পরিমাণে খাবেন:
সাম্প্রতিক এক গবেষণায় পাওয়া যায়, অংশগ্রহণকারীদের একটি ক্যালোরি সীমাবদ্ধ খাদ্য গ্রহণ করার পরিবর্তে, তাদের স্বাভাবিক খাবারের তুলনায় মাত্র ২৫ শতাংশ খাবার কম গ্রহণ করতে বলা হয়েছে। এতে তাদের সামগ্রিক কলেস্টেরল , ট্রাইগ্লিসারাইড-র মাত্রা এবং রক্তচাপ কমে গেছে। কিন্তু এই কমান্ডের মানে এই নয় যে আপনি খাওয়া বন্ধ করে দিবেন। ভিটামিনের ঘাটতি এড়ানোর জন্য nutritionally ঘন খাবার গ্রহণ করুন। চিনি এড়িয়ে চলুন , আপনার যথেষ্ট পরিমাণে প্রোটিন যুক্ত খাবার খাওয়া নিশ্চিত করুন এবং তাজা ফল ও সবজি খেতে ভুলবেন না। প্যাকেজ এবং টিনজাত খাবার অবশ্যই এড়িয়ে চলুন। তারা আপনার স্বাস্থ্য ভাল করার জন্য কোন অবদান রাখে না।

# রসুন খাবার পরিমাণ বৃদ্ধি করুন:
রসুন- আমাদের জন্য অত্যন্ত উপকারী একটি মসলা হিসেবে পরিচিত। এটা রক্তচাপ ও কোলেস্টেরলের মাত্রা কমাতে সাহায্য করে। বিভিন্ন ধরণের সংক্রমণের হাত থেকে রক্ষা করে এবং শক্তিশালী অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট হিসেবে কাজ করে। সম্প্রতি এক গবেষণায় পাওয়া যায়, যারা নিয়মিত রসুন গ্রাস করে তাদের অসুস্থ হবার ঝুঁকি অর্ধেক পর্যন্ত কমে যায়। এটা কাঁচা বা রান্না করে খেতে পারেন , কিন্তু রসুন এর সাপ্লিমেন্ট নেয়া এড়িয়ে চলুন।

এই পাঁচটি কাজ অভ্যাসে রুপান্তর করার চেষ্টা করুন। এগুলো আপনার শরীর ভাল রাখতে সাহায্য করবে।

Googleplus Pint
Like - Dislike Votes 4 - Rating 5 of 10
Relatedআরও দেখুনঅন্যান্য ক্যাটাগরি

পাঠকের মন্তব্য (0)