JanaBD.ComLoginSign Up

নতুন রক্তের গ্রুপের সন্ধান পেলো চিকিৎসকরা !

সাস্থ্যকথা/হেলথ-টিপস 8th Sep 2016 at 11:15am 348
নতুন রক্তের গ্রুপের সন্ধান পেলো চিকিৎসকরা !

মানুষের রক্তের এ, বি, এবি, ও গ্রুপ সম্পর্কে তো আমরা কম-বেশি সবাই জানি। এছাড়া ‘বম্বে গ্রুপ’ নামে একটি রক্তের গ্রুপের নামও মানুষের জানা। এরসঙ্গে এ বার একটি নতুন রক্তের গ্রুপের সন্ধান পেলেন চিকিৎসকরা। যার নাম দেওয়া হচ্ছে ‘IRNA’। সম্প্রতি ভারতের গুজরাটের সুরাতে এক ব্যক্তির শরীরে মিলেছে নতুন এই গ্রুপের রক্ত।

প্রথম দুটি অক্ষর ইন্ডিয়া থেকে ও পরের দুটি রক্তদাতার নামের অক্ষর থেকে নিয়ে নতুন এই রক্তের গ্রুপের নামকরন করা হয়েছে। বিরল এই রক্তের গ্রুপকে WHO-এর পক্ষ থেকেও স্বীকৃতি দেওয়া হয়েছে বলেও জানা গেছে।

সম্প্রতি এক যুবকের রক্তের নমুনা জমা পড়ে সুরাটের লোক সমপর্ণ রক্তদান ল্যাবরেটরিতে।

সেখানে ওই রক্ত পরীক্ষা করে তিন চিকিৎসকের এক দল। পরীক্ষার ফলাফল দেখে চমকে যান চিকিৎসকরা। সাধারণ A, B AB, O গ্রুপের রক্তের সঙ্গে মেলেনি ওই যুবকের রক্তের নমুনা।



এরপরই বিস্তারিত পরীক্ষার জন্য রক্তের নমুনা WHO-তে পাঠানো হয়। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তরফে জানানো হয়, ওই রক্ত স্বতন্ত্র একটি গ্রুপের। সুরাটের চিকিৎসকরাই সিদ্ধান্ত নিয়ে নয়া ওই ব্লাড গ্রুপের নামকরণ করেন।

জেনে রাখুন, রক্তের বিরল এক গ্রুপ ‘বম্বে’ কী?

রক্তের বিরল এক গ্রুপ ‘বম্বে’। বিশ্বের অন্যতম বিরল এ গ্রুপের রক্ত প্রতি দশ লক্ষ মানুষের মধ্যে মাত্র চার জনের শরীরে পাওয়া যায়। বম্বে ব্লাড গ্রুপের আরেক নাম ‘এইচএইচ’ ব্লাড গ্রুপ।

জানা যায়, ১৯৫২ সালে তৎকালীন বম্বেতে এই ব্লাড গ্রুপের আবিষ্কার করেছিলেন ওয়াই জি ভিড়ে। বম্বেতে আবিষ্কার করা হয় বলেই এর নাম দেওয়া হয় ‘বম্বে ব্লাড গ্রুপ’। কিন্তু চিকিৎসার পরিভাষায় এর নাম ‘এইচএইচ’ ব্লাড গ্রুপ।

আবিষ্কারের সময় দেখা যায়, এই ব্লাড গ্রুপের রক্তে ‘এইচ’ নামে একটি অ্যান্টিজেন রয়েছে; যা আগে কোনো ব্লাড গ্রুপে দেখা যায় নি। বম্বে ব্লাড গ্রুপের বিশেষত্ব হলো- এই ব্লাড গ্রুপ যাদের রয়েছে; তারা অন্যকে রক্ত দান করতে পারবেন, কিন্তু নিজে অন্য কোনো গ্রুপের রক্ত গ্রহণ করতে পারবেন না।

এক সমীক্ষায় দেখা যায়, মুম্বাইয়ের মোট ০.০০১ শতাংশ মানুষের শরীরে এই বম্বে ব্লাড গ্রুপ রয়েছে।

অন্যান্য ব্লাড গ্রুপের রক্ত পাওয়া গেলেও ‘বম্বে’ ব্লাড গ্রুপের রক্ত পাওয়া অত্যন্ত কঠিন। সাধারণত বিভিন্ন ব্লাড গ্রুপের মধ্যে পার্থক্য বের করতেই সেগুলোর মধ্যে কী ধরনের অ্যান্টিজেন এবং অ্যান্টিবডি রয়েছে; তা বিশ্লেষণ করা হয়। এর ভিত্তিতেই ব্লাড গ্রুপ চিহ্নিত হয়। এছাড়াও থাকে ‘আরএইচ’ ফ্যাক্টর।

জেনে নিই বম্বে ব্লাড গ্রুপ কী?

সাধারণত ‘এ’ গ্রুপের রক্তে অ্যান্টিজেন ‘এ’ এবং অ্যান্টিবডি ‘বি’ থাকে। আবার ‘বি’ গ্রুপের রক্তে অ্যান্টিজেন ‘বি’ এবং অ্যান্টিবডি ‘এ’ থাকে। ‘এবি’ গ্রুপের রক্তে ‘এ’ ও ‘বি’ অ্যান্টিজেন থাকে। কিন্তু কোনো অ্যান্টিবডি থাকে না। এই তিনটি গ্রুপের রক্তেই অ্যান্টিজেন ‘এইচ’ থাকে। আর ‘ও’ গ্রুপের রক্তে শুধু অ্যান্টিজেন ‘এইচ’ থাকে। আর অ্যান্টিবডি থাকে ‘এ’ ও ‘বি’। কিন্তু ‘ও’ পজেটিভ রক্তের গ্রুপে অনেক সময় অ্যান্টিজেন ‘এইচ’ থাকে না। আর একেই বম্বে ব্লাড গ্রুপ বলা হয়।

‘এইচ’ অ্যান্টিবডি থাকার জন্যে অন্য কোনো রক্ত এই গ্রুপের বাহকদের দেয়া যায় না। শুধুমাত্র বম্বে ব্লাড গ্রুপের রক্তবাহকরাই তাদের রক্ত দিতে পারেন। অথচ যে-কোনো গ্রুপের মানুষকে বম্বে ব্লাড গ্রুপের বাহকরা রক্ত দিতে পারেন।

Googleplus Pint
Like - Dislike Votes 2 - Rating 5 of 10
Relatedআরও দেখুনঅন্যান্য ক্যাটাগরি

পাঠকের মন্তব্য (0)