JanaBD.ComLoginSign Up

ট‌্যাম্পাকোর আগুন নেভেনি, আরেকজনের মৃত‌্যু

দেশের খবর 11th Sep 2016 at 2:19pm 180
ট‌্যাম্পাকোর আগুন নেভেনি, আরেকজনের মৃত‌্যু

ট‌্যাম্পাকো ফয়েলস নামে ওই কারখানার আগুন ২৪ ঘণ্টা পরও পুরোপুরি নেভাতে পারেননি অগ্নি নির্বাপক বাহিনীর কর্মীরা। রোববার সকালেও কারখানা ভবনের চতুর্থ ও পঞ্চম তলায় আগুন জ্বলতে দেখা গেছে।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের বার্ন ইউনিটের আবাসিক চিকিৎসক পার্থ শংকর পাল জানান, রোববার ভোর রাতে রিপন দাশ নামের ৩৫ বছর বয়সী এক যুবকের মৃত‌্যু হয়।

রিপনের শরীরের ৯০ শতাংশ পুড়ে গিয়েছিল। তিনি ছিলেন ওই কারখানার প্রিন্টিং অপারেটর। তার বাড়ি টাঙ্গাইলে।

এছাড়া শাহ আলম (৪৬), দিলীপ দাস (৩৬) ও রাসেল খান (২৬) নামে আরও তিনজন বর্তমানে বার্ন ইউনিটে ভর্তি আছেন।

এছাড়া অগ্নি দুর্ঘটনায় আহত অন্তত ৩৫ জন টঙ্গী সরকারি হাসপাতাল, ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও উত্তরা আধুনিক মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

সিলেটের বিএনপির সাবেক সাংসদ সৈয়দ মো. মকবুল হোসেনের মালিকানাধীন ওই কারখানায় সাড়ে চারশর মতো শ্রমিক থাকলেও শুক্রবার রাতের পালায় ৭৫ জনের মতো কাজ করছিলেন। শনিবার ঈদের ছুটি হওয়ার কথা ছিল।



শনিবার ভোরের দিকে বয়লার বিস্ফোরিত হলে পাঁচ তলা ওই কারখানা ভবনে আগুন ধরে যায়। খবর পেয়ে জয়দেবপুর, টঙ্গী, কুর্মিটোলা, সদর দপ্তর, মিরপুর ও উত্তরাসহ আশে-পাশের ফায়ার স্টেশনের ২৫ ইউনিট নেভানোর কাজ শুরু করে।
গাজীপুর ফায়ার সার্ভিসের উপ-সহকারী পরিচালক মো. আক্তারুজ্জামান রোববার সকালে বলেন, শনিবার সারাদিন চেষ্টার পর গভীর রাতে আগুন নিয়ন্ত্রনে আসে।

“এখনও মাঝে-মধ্যে বিভিন্ন ফ্লোরে আগুনের শিখা দেখা যাচ্ছে। তবে আগুন আর ছড়ানোর সম্ভাবনা নেই।”

কালিয়াকৈর ফায়ার সার্ভিসের লিডার সাইফুল ইসলাম জানান, অত্যাধিক তাপ ও ধোঁয়ার কুণ্ডলীর মধ‌্যে পানি সঙ্কটের কারণেও তাদের আগুন নেভাতে দেরি হচ্ছে।

ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা এখনও কারখানার ভেতরে ঢুকে কাজ শুরু করতে পারেননি। ফলে সেখানে আর কোনো লাশ রয়েছে কিনা তা জানা যায়নি।

সকালেও কয়েকজন কর্মীর খোঁজে কারখানার বাইরে অপেক্ষা করতে দেখা গেছে তাদের স্বজনদের। টাঙ্গাইলের মির্জাপুর থানার উফুলকি গ্রামের আবুল হোসেনের ছেলে জহিরুলকে খুঁজে বেড়াচ্ছেন তার ভগ্নিপতি।



উদ্ধারকর্মীরা কাজ শুরু করার পর শনিবার বিকাল পর্যন্ত মোট ২৪ জনের মৃত‌্যুর খবর জানানো হয়। এদের কেউ অগ্নিদগ্ধ হয়ে মারা গেছেন। আগুনে কারখানার কাঠামো ভেঙে পড়ে তার নিচে চাপা পড়ে মারা যান কেউ কেউ।
এই ঘটনা তদন্তে পাঁচ সদস‌্যের কমিটি গঠন করেছে গাজীপুর জেলা প্রশাসন। কমিটিকে ১৫ দিনের মধ‌্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে। - বিডিনিউজ ২৪

Googleplus Pint
Like - Dislike Votes 6 - Rating 5 of 10
Relatedআরও দেখুনঅন্যান্য ক্যাটাগরি

পাঠকের মন্তব্য (0)