JanaBD.ComLoginSign Up

আকাশের চাঁদ - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর - সোনার তরী

প্রকৃতির কবিতা 30th Sep 16 at 4:54pm 2,156
আকাশের চাঁদ - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর - সোনার তরী

হাতে তুলে দাও আকাশের চাঁদ--
এই হল তার বুলি।
দিবস রজনী যেতেছে বহিয়া,
কাঁদে সে দু হাত তুলি।
হাসিছে আকাশ, বহিছে বাতাস,
পাখিরা গাহিছে সুখে।
সকালে রাখাল চলিয়াছে মাঠে,
বিকালে ঘরের মুখে।
বালক বালিকা ভাই বোনে মিলে
খেলিছে আঙিনা-কোণে,
কোলের শিশুরে হেরিয়া জননী
হাসিছে আপন মনে।
কেহ হাটে যায় কেহ বাটে যায়
চলেছে যে যার কাজে--
কত জনরব কত কলরব
উঠিছে আকাশমাঝে।
পথিকেরা এসে তাহারে শুধায়,
"কে তুমি কাঁদিছ বসি।'
সে কেবল বলে নয়নের জলে,
"হাতে পাই নাই শশী।'
সকালে বিকালে ঝরি পড়ে কোলে
অযাচিত ফুলদল,
দখিন সমীর বুলায় ললাটে
দক্ষিণ করতল।
প্রভাতের আলো আশিস-পরশ
করিছে তাহার দেহে,
রজনী তাহারে বুকের আঁচলে
ঢাকিছে নীরব স্নেহে।
কাছে আসি শিশু মাগিছে আদর
কণ্ঠ জড়ায়ে ধরি,
পাশে আসি যুবা চাহিছে তাহারে
লইতে বন্ধু করি।
এই পথে গৃহে কত আনাগোনা,
কত ভালোবাসাবাসি,
সংসারসুখ কাছে কাছে তার
কত আসে যায় ভাসি,
মুখ ফিরাইয়া সে রহে বসিয়া,
কহে সে নয়নজলে,
"তোমাদের আমি চাহি না কারেও,
শশী চাই করতলে।'
শশী যেথা ছিল সেথাই রহিল,
সেও ব'সে এক ঠাঁই।
অবশেষে যবে জীবনের দিন
আর বেশি বাকি নাই,
এমন সময়ে সহসা কী ভাবি
চাহিল সে মুখ ফিরে
দেখিল ধরণী শ্যামল মধুর
সুনীল সিন্ধুতীরে।
সোনার ক্ষেত্রে কৃষাণ বসিয়া
কাটিতেছে পাকা ধান,
ছোটো ছোটো তরী পাল তুলে যায়,
মাঝি বসে গায় গান।
দূরে মন্দিরে বাজিছে কাঁসর,
বধূরা চলেছে ঘাটে,
মেঠো পথ দিয়ে গৃহস্থ জন
আসিছে গ্রামের হাটে।
নিশ্বাস ফেলি রহে আঁখি মেলি,
কহে ম্রিয়মাণ মন,
"শশী নাহি চাই যদি ফিরে পাই
আর বার এ জীবন।'
দেখিল চাহিয়া জীবনপূর্ণ
সুন্দর লোকালয়
প্রতি দিবসের হরষে বিষাদে
চির-কল্লোলময়।
স্নেহসুধা লয়ে গৃহের লক্ষ্মী
ফিরিছে গৃহের মাঝে,
প্রতি দিবসেরে করিছে মধুর
প্রতি দিবসের কাজে।
সকাল বিকাল দুটি ভাই আসে
ঘরের ছেলের মতো,
রজনী সবারে কোলেতে লইছে
নয়ন করিয়া নত।
ছোটো ছোটো ফুল, ছোটো ছোটো হাসি,
ছোটো কথা, ছোটো সুখ,
প্রতি নিমেষের ভালোবাসাগুলি,
ছোটো ছোটো হাসিমুখ
আপনা-আপনি উঠিছে ফুটিয়া
মানবজীবন ঘিরি,
বিজন শিখরে বসিয়া সে তাই
দেখিতেছে ফিরি ফিরি।
দেখে বহুদূরে ছায়াপুরী-সম
অতীত জীবন-রেখা,
অস্তরবির সোনার কিরণে
নূতন বরনে লেখা।
যাহাদের পানে নয়ন তুলিয়া
চাহে নি কখনো ফিরে,
নবীন আভায় দেখা দেয় তারা
স্মৃতিসাগরের তীরে।
হতাশ হৃদয়ে কাঁদিয়া কাঁদিয়া
পুরবীরাগিণী বাজে,
দু-বাহু বাড়ায়ে ফিরে যেতে চায়
ওই জীবনের মাঝে।
দিনের আলোক মিলায়ে আসিল
তবু পিছে চেয়ে রহে--
যাহা পেয়েছিল তাই পেতে চায়
তার বেশি কিছু নহে।
সোনার জীবন রহিল পড়িয়া
কোথা সে চলিল ভেসে।
শশীর লাগিয়া কাঁদিতে গেল কি
রবিশশীহীন দেশে।


বোট। যমুনায়। বিরাহিমপুরের পথে ২২ আষাঢ় ১২৯৯

Googleplus Pint
Like - Dislike Votes 63 - Rating 4.9 of 10
Relatedআরও দেখুনঅন্যান্য ক্যাটাগরি
একদিন কুয়াশার এই মাঠে - জীবনানন্দ দাশ একদিন কুয়াশার এই মাঠে - জীবনানন্দ দাশ
18th Dec 17 at 2:00am 880
পদ্মার প্রতি - সত্যেন্দ্রনাথ দত্ত পদ্মার প্রতি - সত্যেন্দ্রনাথ দত্ত
31st Oct 17 at 12:23am 482
ঝর্ণা - সত্যেন্দ্রনাথ দত্ত ঝর্ণা - সত্যেন্দ্রনাথ দত্ত
29th Apr 17 at 12:19am 900
সূর্য নক্ষত্র নারী (২) - জীবনানন্দ দাশ সূর্য নক্ষত্র নারী (২) - জীবনানন্দ দাশ
13th Jan 17 at 10:56pm 1,049
সূর্য নক্ষত্র নারী (১) - জীবনানন্দ দাশ সূর্য নক্ষত্র নারী (১) - জীবনানন্দ দাশ
30th Dec 16 at 11:28pm 1,069
বুনোহাঁস - জীবনানন্দ দাশ বুনোহাঁস - জীবনানন্দ দাশ
18th Dec 16 at 11:46pm 1,141
হেমন্ত যেখানে থাকে - শক্তি চট্টোপাধ্যায় হেমন্ত যেখানে থাকে - শক্তি চট্টোপাধ্যায়
18th Dec 16 at 11:42pm 877

পাঠকের মন্তব্য (0)

Recent Posts আরও দেখুন
কাল জিম্বাবুয়ের কাছে হারলেই বাদ শ্রীলঙ্কাকাল জিম্বাবুয়ের কাছে হারলেই বাদ শ্রীলঙ্কা
হুয়াওয়ের নতুন ফোনে ‘ফেস আনলক’হুয়াওয়ের নতুন ফোনে ‘ফেস আনলক’
অভিজ্ঞতা ছাড়া নভোএয়ারে কাজের সুযোগঅভিজ্ঞতা ছাড়া নভোএয়ারে কাজের সুযোগ
কাজী ফার্মস গ্রুপে নিয়োগকাজী ফার্মস গ্রুপে নিয়োগ
ইনস্টাগ্রামে যুক্ত হল নতুন এক ফিচারইনস্টাগ্রামে যুক্ত হল নতুন এক ফিচার
রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে ও কোষ্ঠকাঠিন্য উপশমে মুলারক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে ও কোষ্ঠকাঠিন্য উপশমে মুলা
‘স্টুডেন্ট অব দ্য ইয়ার টু’তে নেই বিশ্বসুন্দরী‘স্টুডেন্ট অব দ্য ইয়ার টু’তে নেই বিশ্বসুন্দরী
তৃতীয় ও চতুর্থ ওয়ানডেতে নেই ইমরুলতৃতীয় ও চতুর্থ ওয়ানডেতে নেই ইমরুল