JanaBD.ComLoginSign Up

Internet.Org দিয়ে ফ্রিতে ব্রাউজ করুন আমাদের সাইট :) Search করুন , "জানাবিডি ডট কম" পেয়ে যাবেন ।

জেনে নিন ঘিয়ের উপকারিতা সম্পর্কে

সাস্থ্যকথা/হেলথ-টিপস 1st Oct 2016 at 2:01pm 232
জেনে নিন ঘিয়ের উপকারিতা সম্পর্কে

খাবারের স্বাদ গন্ধ বৃদ্ধিতে ঘি রান্নায় বহুদিন ধরে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। ঘি এর কদর সর্বত্র। গুরুপাক খাবারে ঘি ব্যবহৃত হয়ে খাদ্যরসিক বাঙ্গালির রসনার তৃপ্তি ঘটিয়ে আসছে। এক চামচ ঘি দিলে এক প্লেট গরম ভাতকে অমৃত বলে মনে হয়।

পোলাও রাঁধতেও ঘি লাগে। বিভিন্ন রোগ নিরাময়েও ঘিয়ের উপকারিতা অসীম। দুধের চেয়েও ঘি হজমের শক্তি বেশি বাড়িয়ে দেয় বলে দাবি করেছেন চিকিৎসকরা। আসুন জেনে নিই ঘিয়ের উপকারিতা সম্পর্কে।

মস্তিষ্কের সুরক্ষায়:

মস্তিস্ক সুরক্ষায় এটি খুব উপকারী। একাগ্রতা বাড়াতে ও স্মৃতিশক্তি ধরে রাখতে ঘি খেতে পারেন। এটি একই সঙ্গে শরীর ও মন ভালো রাখে।

চোখের জ্যোতি:

এটি চোখের জ্যোতি বাড়াতে সাহায্য করে। পাশাপাশি চোখের চাপ নিয়ন্ত্রণে রাখে। বিশেষ করে গ্লুকোমায় ভুগছেন এমন ব্যক্তিদের জন্য হিতকর খাবার ঘি।

অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট:

ঘি একটি অ্যান্টি-অক্সিডেন্টপূর্ণ খাবার। এ উপাদান অন্যান্য খাবারের ভিটামিন ও মিনারেলের সঙ্গে মিশে রোগ প্রতিরোধশক্তি বাড়িয়ে দেয়।

হাড় মজবুতে:

মাংসপেশীর সঙ্গে হাড়ের গঠন মজবুত করে ঘি এবং ঘি দিয়ে তৈরি খাবার।

ত্বকের যত্নে ঘি:

ত্বকের যত্মে এটি খুব উপকারী। তাই সুন্দর থাকতে এবং চামড়া টানটান রাখতে নিয়মিত এটি খেয়ে যান।

কোলেস্টেরল সমস্যা সমাধানে:

আপনার যদি কোলেস্টেরলের সমস্যা থাকে তাহলে মাখনের চেয়ে এটি বেশি উপকারে আসবে।

তবে যাদের উচ্চমাত্রায় কোলেস্টেরল রয়েছে, তাদের খাবারের তালিকায় ঘি না থাকাই শ্রেয়। এ খাবার গ্রহণে পরিমিত হতে হবে। একবারের বেশি খাওয়া যাবে না। দিনে ১০ থেকে ১৫ গ্রাম ঘি খাওয়া যেতে পারে।

এছাড়া অতিরিক্ত ওজন সমস্যায় ভুগলে এ গুরুপাক খাবার এড়িয়ে চলাই ভালো বলে মনে করেন পুষ্টিবিদরা। তাই নির্দ্বিধায় ঘি খেতে পারেন কারণ ইতোমধ্যেই জেনে গেছেন ঘিয়ের উপকারিতা।

Googleplus Pint
Mizu Ahmed
Manager
Like - Dislike Votes 4 - Rating 5 of 10
Relatedআরও দেখুনঅন্যান্য ক্যাটাগরি

পাঠকের মন্তব্য (0)