JanaBD.ComLoginSign Up

জানা হবে অনেক কিছু, চালু হয়েছে জানাবিডি (JanaBD) এন্ডয়েড এপস । বিস্তারিত জানুন..
Internet.Org দিয়ে ব্রাউজ করুন আমাদের সাইট ফ্রী , "জানাবিডি ডট কম"

বাবা-মা নিজ সন্তানকে ঘরে বন্দি করে রাখে দীর্ঘ ৩০ বছর, কিন্তু কেন?

সাধারন অন্যরকম খবর 6th Oct 2016 at 3:06pm 1,050
বাবা-মা নিজ সন্তানকে ঘরে বন্দি করে রাখে দীর্ঘ ৩০ বছর, কিন্তু কেন?

জার্মানিতেও যে এমন ঘটনা ঘটতে পারে এটি অনেকের ধারণারও বাইরে ছিল। কিন্তু দীর্ঘ ৩০ বছর ধরেই এ ঘটনাটি ঘটেছে জার্মানির বাভারিয়ার ফ্রেইনফেল্ডস অঞ্চলের এক বাড়িতে। অবশেষে এক প্রতিবেশী তার আর্তনাদ শুনতে পেয়ে তাকে মুক্ত করার উদ্যোগ নেয়। এক প্রতিবেদনে বিষয়টি জানিয়েছে গার্ডিয়ান।

দীর্ঘ তিন দশক বন্দি থাকা জার্মানির সেই পুরুষের বয়স বর্তমানে ৪৩ বছর। সম্প্রতি এক প্রতিবেশীর কাছ থেকে খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে বাড়ি তল্লাশি করে তার সন্ধান পায়।

কিন্তু কী কারণে তাকে বন্দি করে রেখেছিল নিজেরই বাবা মা? এ বিষয়টি অনুসন্ধানে জানা যায়, অল্প বয়সেই প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পড়ার সময় তার কিছু সমস্যা ধরা পড়ে।

পরবর্তীতে ১৩ বছর বয়সে স্কুল কর্তৃপক্ষ তাকে স্কুলে পড়ার অনুপযোগী বলে ঘোষণা করে। আর এরপর থেকে তার বাবা-মা তাকে অন্য কোথাও ভর্তি না করে বাড়িতেই বন্দি করে রাখে।

বাড়িতে রেইড দিয়ে তাকে উদ্ধারের পর পুলিশ একটি স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করা হয়েছে। তার বাবা-মায়ের বিরুদ্ধে সন্তানকে বন্দি করে রাখার অভিযোগও আনা হয়েছে।

অবশ্য বন্দি করে রাখার বিষয়টিকে ঠিক সেভাবে মানতে নারাজ তার বাবা-মা। তার মা স্থানীয় সংবাদমাধ্যমকে জানান, সে তার জীবনের পর্যাপ্ত স্বাদ পেয়েছে। তিনি বলেন, তাকে স্কুলে সবাই উত্ত্যক্ত করত।

তিনি আরও বলেন, 'সে আমাদের সঙ্গে থাকতে চাইত। আমি যদি বিষয়টি বলি তাহলে হয়ত তোমরা তা বিশ্বাস করবে না। আমি সব সময়ই চেয়েছি তাকে রক্ষা করতে।'

এর আগেও জার্মানির বাভারিয়াতে এমন ঘটনার সন্ধান পাওয়া গেছে। সে সময় ২৬ বছর বয়সী এক নারীকে তার মা বহু বছর ধরে বন্দি করে রেখেছিলেন বলে অভিযোগ পাওয়া যায়। তবে পুলিশ তাদের বাড়ি তল্লাশি করতে গেলে তার মা তৃতীয় তলা থেকে লাফিলে পালানোর চেষ্টা করে আহত হন।


জানা হবে অনেক কিছু, চালু হয়েছে জানাবিডি (JanaBD) এন্ডয়েড এপস । বিস্তারিত জানুন..

Googleplus Pint
Noyon Khan
Manager
Like - Dislike Votes 4 - Rating 5 of 10
Relatedআরও দেখুনঅন্যান্য ক্যাটাগরি

পাঠকের মন্তব্য (0)