JanaBD.ComLoginSign Up

জানা হবে অনেক কিছু, চালু হয়েছে জানাবিডি (JanaBD) এন্ডয়েড এপস । বিস্তারিত জানুন..
Internet.Org দিয়ে ব্রাউজ করুন আমাদের সাইট ফ্রী , "জানাবিডি ডট কম"

জেদের কারণেই এতটা পরিণত ইমরুল!

ক্রিকেট দুনিয়া 8th Oct 2016 at 4:10pm 581
জেদের কারণেই এতটা পরিণত ইমরুল!

বাংলাদেশ দলে অনেকদিন ধরেই আছেন ইমরুল কায়েস। তবে এই অনেক দিন দলে থাকা ইমরুলের ওয়ানডে ম্যাচ খেলা হয়নি বেশি। টেস্টে নিয়মিত দেখা গেলেও ওয়ানডেতে সহজেই তার দেখা মিলতো না। কারণ কি? কারণ ওয়ানডে ক্রিকেটে তরুণ সৌম্য, বিজয়দের ভিড়ে দলে জায়গা হয়নি তার। তবে তাতে তিনি থেমে যাননি।

তার জেদ তাকে আগের চেয়েও অনেক পরিণীত করেছে, রান পাওয়ার জন্য হয়ে উঠেছেন আরো ক্ষুধার্ত। নেট অনুশীলন কিংবা প্রস্ততি ম্যাচ, তার ব্যাটে রান আছেই। আফগানিস্তান সিরিজের পূর্বে দলে ডাক পেয়েছিলেন ২০১৫ বিশ্বকাপে এনামুলের পরিবর্তে। ইনজুরির কারণে দল থেকে ছিটকে গিয়েছিলেন এনামুল, এসেই ইংল্যান্ডের বিপক্ষে খেলছিলেন তিনি, কিন্তু সেবার ব্যাটে রান পাননি ইমরুল কায়েস।

দেড় বছর পর আবারো সেই প্রতিপক্ষ। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ইমরুলের রেকর্ড বরাবরিই ভালো। আফগানিস্তান বিপক্ষে প্রথম ওয়ানডেতে ৩৭ রান করার পরও সিরিজের বাকি দুটি ম্যাচে দলে জায়গা হয়নি তার। ভালো করেও দলে জায়গা না পাওয়ার আক্ষেপটা নিজেকে আরো পরিণীত করতে সাহায্য করেছে। তাই তো ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজ শুরু হওয়ার পূর্বে প্রস্ততি ম্যাচে সেঞ্চুরি করে দলে নিজের জায়গা পাকা করার এক রকম আবাশ দিয়েছেন কায়েস। প্রস্ততি ম্যাচের রানের ধারা বজায় রেখেছে সিরিজের প্রথম ম্যাচেও।

'সাড়ে ছয় বছর পর সেঞ্চুরি করছি কিন্তু দেখার বিষয় এই ছয় বছরে দলের হয়ে আমি কয়টা ম্যাচ খেলেছি। হ্যাঁ, জেদ তো একটু ছিলই। সেই জন্যই এতোদুর আসতে পেরেছি। যখন কেউ বলে আমি টেস্টের জন্য উপযুক্ত তখন সেটা শুনতে আমার খারাপ লাগে। বাংলাদেশের এমন অনেক ক্রিকেটারের ক্যারিয়ার শেষ হয়ে গেছে যখন তারা নির্দিষ্ট ফরম্যাটে স্পেশালিষ্ট ক্রিকেটার হয়েছিল। কারণ ওই ফরম্যাটে যখন সে খারাপ খেলে তাহলে তার ক্যারিয়ার অনেকটাই শেষ হয়ে যায়।'

রান নিতে গিয়ে পায়ে চোট পান ইমরুল কায়েস। চোট নিয়েই এক ঘণ্টারও বেশি ক্রিজে ছিলেন তিনি। দলকে জেতাতে সব ধরণের চেষ্টা করেছিলেন তিনি। দলের বাকি ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতা ও সাকিবের অপ্রয়োজনীয় এগ্রেসিভ ক্রিকেটের জন্য নায়ক বনা হয়নি তার। তাইতো সেঞ্চুরি করেও কণ্ঠে ভেসে উঠলো হতাশার চাপ।

'আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সেঞ্চুরি করা, এট অবশ্যই অনেক বড় অর্জন। ভালো লাগতো যদি ম্যাচটা শেষ করে আসতে পারতাম বা জিততে পারতাম। তাহলে আমার কাছে এই ইনিংসটি আরো স্বরণীও হয়ে থাকতো। আমাদের একটু সমস্যা হয়ে গিয়েছিল দ্রুত রান করতে গিয়ে। সাকিবের সঙ্গে আমার অনেক ভালো পার্টনারশিপ হয়েছিল, যদি সেটা আরেকটু বড় করা যেত তাহলে হয়ত জিততে পারতাম। সাকিবের আউট হওয়ার পর হয়ত অন্যরা সে প্রেসারটা নিতে পারেনি, তাই ফলাফল আমাদের পক্ষে আসেনি।'

সূত্রঃ বিডিলাইভ২৪


জানা হবে অনেক কিছু, চালু হয়েছে জানাবিডি (JanaBD) এন্ডয়েড এপস । বিস্তারিত জানুন..

Googleplus Pint
Mizu Ahmed
Manager
Like - Dislike Votes 5 - Rating 4 of 10
Relatedআরও দেখুনঅন্যান্য ক্যাটাগরি

পাঠকের মন্তব্য (0)