JanaBD.ComLoginSign Up

প্রশংসায় ভাসছে ‘আয়নাবাজি’

সিনেমা জগৎ 24th Oct 2016 at 7:20pm 994
প্রশংসায় ভাসছে ‘আয়নাবাজি’

এরইমধ্যে রেকর্ড পরিমাণ সাফল্য অর্জন করেছে মৌলিক গল্পের ছবি 'আয়নাবাজি'। জনপ্রিয় নির্মাতা অমিতাভ রেজার তৈরি ছবিটি গেলো ৩০ সেপ্টেম্বর মুক্তি পায়। ছবিতে অভিনয় করেছেন অভিনেতা চঞ্চল চৌধুরী, মাসুমা রহমান নাবিলা ও পার্থ বড়ুয়া।

চতুর্থ সপ্তাহে এসেও ৭০টির বেশি হল আয়নাবাজি'র দখলে। অনুসন্ধানে জানা গেছে, দর্শকদের মধ্যে আয়নাবাজি'র উন্মাদনার ফলে যৌথ প্রযোজনার তৈরি 'প্রেম কি বুঝিনি' ও 'চোখের দেখা' ব্যবসায়িক দিক দিয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। আয়নাবাজি'র সাফল্যে সন্মান দেখিয়ে পিছিয়ে নেয়া হয়েছে 'এক পৃথিবী প্রেম' ছবিটি।

এ ছবির মাধ্যমে শুধু সাধারণ দর্শক না অভিনেতা-অভিনেত্রী, রাজনীতিবিদ, জাতীয় দলের ক্রিকেটারসহ বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষকে প্রশংসার ঝড় তুলতে দেখা গেছে।

এ ব্যাপারে চঞ্চল চৌধুরী বলেন, 'আয়নাবাজি যারা দেখেছেন তারা একদল এবং যারা দেখেননি তারা একদল এমন একটি বিষয় তৈরি হয়েছে। খুব ভালো লাগছে দর্শকদের কাছে থেকে এমন সাড়া পেয়ে'।

'আয়নাবাজি' প্রমাণ করেছে ভালো ছবি হলে দর্শক এখনো হলে যায়। এমন কী এ ছবির টিকিটেরর জন্য মারামারির ঘটনা ঘটেছে! আয়নাবাজি হয়তো গেলো দশ বছরের একমাত্র ছবি যা দেখার জন্য টানা চতুর্থ সপ্তাহ পর্যন্ত দর্শকদের হলে ভিড় জমাতে দেখা যাচ্ছে। নতুনদিনের পরিচালকের জন্য শক্তির উদাহরণ হয়ে থাকবে চলচ্চিত্রটি।

'আয়নাবাজি'র শুভকামনায়

সঙ্গীত শিল্পী ও সাংসদ মমতাজ বলেন, ‘বহুদিন পর অনেক সুন্দর একটা বাংলা ছবি দেখলাম। ছবিটি দেখতে দর্শক যেভাবে সিনেমা হলে ছুটছে, তা আমাকে অনেক বেশি আশাবাদী করেছে। আমি খবর নিয়ে এও জানতে পেরেছি, যেসব সিনেমা হলে 'আয়নাবাজি' মুক্তি পেয়েছে, তার সবই হাউসফুল। আমি যেমন পরিবারের সবাইকে নিয়ে ছবিটি দেখলাম, ঠিক তেমনি অন্যরাও দেখবেন। আমার কাছে সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য যেটা মনে হয়েছে, তা হচ্ছে, বড়রা যেমন ছবিটি দেখে মজা পাচ্ছেন, তেমনি বাচ্চারাও খুব উপভোগ করছে।’



চট্টগ্রামের পাঁচতারকা হোটেলে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের খেলোয়াড়দের জন্য ‘আয়নাবাজি’ ছবির বিশেষ প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়।

এ সময় ছবির অভিনয়শিল্পী নাবিলা, পার্থ বড়ুয়া, নির্বাহী প্রযোজক এশা ইউসুফ, পরিচালক অমিতাভ রেজা চৌধুরী, প্রযোজক জিয়াউদ্দিন আদিল এবং আরটিভির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দ আশিক রহমান উপস্থিত ছিলেন।

জাতীয় দলের ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান বলেন, ‘আমি বলবো, একেবারে আলাদা রকমের একটি গল্প। সবাই ছবিটি খুব এনজয় করবে, যারা দেখেছেন, তারা আমার সঙ্গে একমত হবেন। আর যারা দেখেননি, তারা হলে গিয়ে দেখবেন বলে আমি আশা করছি।’

মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ বলেন, ‘আমাদের দেশে ভালো মানের ছবি দরকার। আশা করছি, এ রকম আরো ভালো ছবি তৈরি হবে এবং আমরাও সবাই মিলে হলে গিয়ে সিনেমা দেখতে পারবো।’



সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর ছবিটি দেখার পর বলেন, 'আয়নাবাজি দেখে সত্যিই মুগ্ধ হয়েছি। যদি অল্প কথায় বলতে হয় তাহলে বলব আয়নাবাজি একটি চলচ্চিত্রই হয়েছে। আমি এর আগে অনেক চলচ্চিত্রই দেখেছি। চলচ্চিত্র তৈরি করতে গিয়ে অনেকেই নাটক-টেলিফিল্ম তৈরি করে ফেলেন; কিন্তু অমিতাভ একটি চলচ্চিত্রই করেছে। এর গল্প এবং এতে যারা অভিনয় করেছেন বিশেষ করে চঞ্চল চৌধুরী খুব ভালো অভিনয় করেছেন। পুরো আয়নাবাজি টিমের জন্য আমার শুভ কামনা'।

নাট্যব্যক্তিত্ব আলী যাকের বলেন, সবশেষ ফারুকীর টেলিভিশন চলচ্চিত্রটি দেখেছিলাম। বেশ কয়েক বছর পর কোনো ভালো লাগার মতো চলচ্চিত্র দেখেছি। আমার কাছে সত্যিই খুব ভালো লেগেছে।

গীতি আরা সাফিয়া বলেন, প্রায় ২৯ বছর পর হলে গিয়ে সিনেমা উপভোগ করেছি। খুব ভালো একটি সিনেমা দেখলাম। পুরো আয়নাবাজি টিম যে অনেক কষ্ট করেছে তা আয়নাবাজি দেখলেই বোঝা যায়।



ছবির গল্পে দেখা যাবে, শরাফত করিম আয়না (চঞ্চল চৌধুরী)সাধারণ শিক্ষক আর পার্টটাইম জাহাজের কুকের ছদ্মবেশে লুকিয়ে থাকা এক অপরাধী! তবে অপরাধ জগতে তার বিচরণ হল অন্য দাগী অপরাধীদের হয়ে জেল খাটা আসামি। অন্যের হাঁটাচলা থেকে অঙ্গভঙ্গি সুনিপুণভাবে অনুকরণ করতে পারা মানে তার অভিনয়গুণই এক্ষেত্রে বড় যোগ্যতা। এ চলচ্চিত্রে চঞ্চল ছয়টি চরিত্রে অভিনয় করেছেন। ছয়টি চরিত্রের প্রতিটি আলাদা। সাধারণের চোখ ফাঁকি দিতে পারলেও এক হতাশাগ্রস্ত ক্রাইম রিপোর্টার (সঙ্গীত শিল্পী পার্থ বড়ুয়া) সত্য উদ্ঘাটনের জন্য আয়নার পিছু নেয়, অন্যদিকে পাড়ায় নতুন আসা মেয়েটির (নাবিলা) প্রেমে পড়েন আয়না। ক্ষমতা আর টাকার জোরে বড় বড় অন্যায় আর অপরাধীদের এভাবে পার পেয়ে যাবার খেলায় আয়না তার আয়নাবাজি কতদিন চালাতে পারবেন?

Googleplus Pint
Like - Dislike Votes 67 - Rating 8.2 of 10
Relatedআরও দেখুনঅন্যান্য ক্যাটাগরি

পাঠকের মন্তব্য (0)