JanaBD.ComLoginSign Up

গবেষণা: ব্রহ্মাণ্ডের গঠন উন্মোচনের সম্ভাবনা

বিজ্ঞান জগৎ 14th Nov 2016 at 5:01pm 358
গবেষণা: ব্রহ্মাণ্ডের গঠন উন্মোচনের সম্ভাবনা

ভারতীয় একদল বিজ্ঞানীর করা নতুন এক গবেষণায় ব্রহ্মাণ্ডের গঠন উন্মোচন হওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। খবর ডেকান ক্রনিকালের।

উল্লেখযোগ্য এ গবেষণাটি পাঁচ ভারতীয় বিজ্ঞানীর সমন্বয়ে পরিচালনা করা হয়েছে। তারা ‘ফিলমেন্ট’ ব্রহ্মাণ্ডের তরঙ্গ পর্যবেক্ষণ করার একটি নতুন নকশা নিয়ে হাজির হয়েছেন। যেটা কিভাবে ছায়াপথ এবং ছায়াপথের ঝাঁক রূপান্তরিত হয়েছিল তা এবং ব্রহ্মাণ্ডের নতুন নমুনার উন্মোচন করতে পারে।

জোতির্বিজ্ঞানীর এ দলটি তাদের নির্ণেয় তত্ত্ব গত সপ্তাহে দেশটির গোয়ায় উপস্থাপন করেছে। পুনে ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক ড. সুরুজিত পলের পরিচালিত ইন্টার-ইউনিভার্সিটি অ্যাস্ট্রোনোমি এবং অ্যাস্ট্রোফিজিক্সকের (আইইউসিএএ) সহযোগিতায় এ গবেষণাটি উপস্থাপন করা হয়।


‘ফিলমেট’ পর্যবেক্ষণের প্রথম কোনো তাত্ত্বিক নমুনা এটি। ভারতীয় বিজ্ঞানীদের গবেষণায় বলা হয় যে আসন্ন বিশ্বের বৃহৎ রিডিও টেলিস্কোপে ‘স্কুয়ার কিলোমিটার অ্যারাইয়ের’ (এসকেএ) মাধ্যমে বৃহ্মাণ্ডের অদেখা গঠন সনাক্ত করা সম্ভব।

ড. সুরুজিত পল বলেন, ‘আমাদের ছায়াপথের মত হাজারো ছায়াপথের মাধ্যমে গঠিত বৃহৎ পরিচিত আকৃতির বস্তুগুলোকে ছায়াপথের ঝাঁক (galaxy clusters) বলা হয়। ছায়াপথের এসব ঝাঁক ফিলমেটের মধ্যে অন্তর্ভুক্ত। যেটা ব্রহ্মাণ্ড তরঙ্গের ভূমিকা পালন করে।’

তিনি আরো বলেন, ‘ফিলমেট কীভাবে এবং কি ধরনের তরঙ্গদৈর্ঘ্যে তরঙ্গ নির্গত করতে পারে তা পর্যবেক্ষণ করা যাবে। এর তাত্ত্বিক নমুন উপস্থাপন করা হয়েছে।’

তিনি আরো বলেন, ‘ব্রহ্মাণ্ড তরঙ্গের অনেক উপাদান রয়েছে। কিন্তু তা খুবই ঠাণ্ডা এবং তাই খুবই কম আলো নির্গত করে। তাই বর্তমানের প্রচলিত টেলিস্কোপের মাধ্যমে এগুলো সনাক্ত করা কঠিন। আর এ কারণে এখনো তা পর্যবেক্ষণ করা হয়নাই।

এসকেএ টেলিস্কোপটি অস্ট্রেলিয়া এবং দক্ষিণ আফ্রিকায় নির্মাণ করা হচ্ছে। ভারত জাপান এবং অস্ট্রেলিয়াসহ ১০টি দেশ এতে সম্পৃক্ত রয়েছে।

-ইত্তেফাক

Googleplus Pint
Like - Dislike Votes 7 - Rating 5.7 of 10
Relatedআরও দেখুনঅন্যান্য ক্যাটাগরি

পাঠকের মন্তব্য (0)