JanaBD.ComLoginSign Up

অ্যান্টিবায়োটিক গ্রহণকালীন যে খাবারগুলো এড়িয়ে চলতে হবে

সাস্থ্যকথা/হেলথ-টিপস 24th Nov 2016 at 4:06pm 206
অ্যান্টিবায়োটিক গ্রহণকালীন যে খাবারগুলো এড়িয়ে চলতে হবে

বিশেষ কিছু ওষুধের সঙ্গে বিশেষ কিছু খাবার গ্রহণ বিপজ্জনক। এখানে এমন কিছু খাবারের তালিকা তুলে ধরা হলো যেগুলো অ্যান্টিবায়োটিক গ্রহণের সময় খাওয়া ঠিক নয়।

দুধ ও দগ্ধজাত পণ্য
এসব খাবার খেলে তা অ্যান্টিবায়োটিকের কার্যকারিতা বাধাগ্রস্ত করতে পারে। এসব খাবার ডায়রিয়ার অবনতি ঘটানোর কারণও হতে পারে। অ্যান্টিবায়োটিক সেবনের ফলে অনেক সময় ডায়রিয়া দেখা দেয়।

মদ
মদ অ্যান্টিবায়োটিকের কার্যকারিতা নষ্ট করে কিনা সে ব্যাপারে গবেষণালব্ধ কোনো প্রমাণ নেই। কিন্তু এর ফলে এমন কিছু অস্বস্তিকর পার্শ্ব-প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হতে পারে যার মধ্যে ঝিমুনি এবং অন্ত্রের সমস্যাদিও অন্তর্ভুক্ত।

অ্যাসিড উৎপাদনকারী খাদ্য
যেসব খাদ্য অ্যাসিড উৎপাদনকারী যেমন, টমেটো, লেবু, চকোলেট, আঙ্গুর এবং কোমল পানীয় এসব খাবার অ্যান্টিবায়োটিক শোষণ প্রক্রিয়াকে বাধাগ্রস্ত করে। আর এতে আপনার আরোগ্য লাভের প্রক্রিয়াও ধীর হয়ে আসবে।

উচ্চ আঁশযুক্ত খাবার
ডাল, পূর্ণ শস্য, শীম এবং ব্রোকোলির মতো উচ্চ আঁশযুক্ত খাবার খুবই স্বাস্থ্যকর যখন আপনি অ্যান্টিবায়োটিক গ্রহণ করছেন না। এই খাবারগুলো পাকস্থলীর খাদ্য শোষণ প্রক্রিয়ার গতি ধীর করে দেয়। ফলে অ্যান্টিবায়োটিক শোষণ প্রক্রিয়ার গতিও ধীর হয়ে আসে।

লৌহ, ক্যালসিয়াম পরিপূরক
লৌহ এবং ক্যালসিয়াম পরিপূরক অ্যান্টিবায়োটিক শোষণ প্রক্রিয়াকে বাধাগ্রস্ত করে। ফলে সাপ্লিমেন্ট এবং অ্যান্টিবায়োটিক গ্রহণের মধ্যে অন্তত তিন ঘন্টার জন্য বিরতি নেওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়।

ভারী খাদ্য
পাকস্থলীতে ভারী খাদ্য থাকলে এর ওষুধ শোষণ প্রক্রিয়া বাধাগ্রস্ত হয়, যেহেতু এই ধরনের খাদ্য হজম প্রক্রিয়াকে বাধাগ্রস্ত করে। এসব খাবার হজমে লম্বা সময় লাগে ফলে এগুলো অ্যান্টিবায়োটিক শোষণ এবং আরোগ্য লাভের প্রক্রিয়াকেও বাধাগ্রস্ত করতে পারে।

কী খাওয়া উচিত
অ্যান্টিবায়োটিক গ্রহণের সময় প্রোবায়োটিক সমৃদ্ধ খাবার যেমন, দই, কাসুন্দি, গেঁজানো প্রোবায়োটিক দুধ বা প্রোবায়েটিক বড়ি অথাবা পাউডার খান।

পুষ্টিগুন সমৃদ্ধ স্যুপ খান। যাতে উচ্চহারে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট থাকে। এজন্য পাতাকপি, পালং শাক এবং পেঁয়াজের স্যুপ খেতে পারেন।

গেঁজানো বাঁধাকপি, কাজু বাদাম এবং রসুনের মতো প্রোবায়োটিক সমৃদ্ধ খাবারও খেতে পারেন। এছাড়া জিঙ্ক সমৃদ্ধ কুমড়ো বীজেও প্রোবায়েটিক উপাদান রয়েছে প্রচুর।

Googleplus Pint
Like - Dislike Votes 4 - Rating 5 of 10
Relatedআরও দেখুনঅন্যান্য ক্যাটাগরি

পাঠকের মন্তব্য (0)