JanaBD.ComLoginSign Up

শচীনের ড্রিঙ্কের অফারে কোহলি যা করলেন!

খেলাধুলার বিবিধ 25th Nov 2016 at 9:15pm 354
শচীনের ড্রিঙ্কের অফারে কোহলি যা করলেন!

ইংল্যান্ডের প্রাক্তন অধিনায়ক মাইকেল ভন প্রশ্ন ছুড়ে দিয়েছিলেন। উত্তর দিয়েছেন ভারতের টেস্ট দলের অধিনায়ক বিরাট কোহলি। সেই সাক্ষাৎকারে বিরাট কোহলি চমকপ্রদ তথ্য তুলে ধরেছেন শচীন টেন্ডুলকার প্রসঙ্গে।

জানিয়েছেন কীভাবে ‘মাস্টার ব্লাস্টার’ তাঁকে একবার মহা বিড়ম্বনায় ফেলে দিয়েছিলেন। কোনওভাবে সেই যাত্রায় কোহলি পরিস্থিতির সামাল দেন। পরবর্তীকালে অবশ্য কোহলি ও শচীনের সম্পর্ক স্বাভাবিক হয়ে যায়।

২০০৮-এ শচীনের সঙ্গে কোহলির প্রথম সাক্ষাৎ। সেই সময়ে ‘ক্রিকেট-বিস্ময়’কে সামনে থেকে দেখে একটা শব্দও উচ্চারণ করতে পারেননি কোহলি। শচীনের দিকে কেবল তাকিয়েছিলেন।

এরকম অবশ্য হওয়ারই কথা। ছোটবেলা থেকে শচীনকে দেখেই বড় হয়েছেন কোহলি। উঠতি ক্রিকেটারদের কাছে শচীনই আদর্শ। সেই শচীন কিনা কোহলির সামনে।

মন্ত্রমুগ্ধের মতো শচীনের দিকেই তাকিয়েছিলেন কোহলি। পরবর্তীকালে শচীনের সঙ্গে বাইরে খেয়েছেন। ‘মাস্টার ব্লাস্টার’-এর কাছ থেকে পরামর্শ নিয়েছেন। শচীন যেদিন জানিয়ে দেন তিনি অবসর নিচ্ছেন, সেদিন নিজেকে ধরে রাখতে পারেননি কোহলি। কেঁদে ফেলেছিলেন তিনি।

এই শচীনই ভারতের বর্তমান টেস্ট দলের অধিনায়ককে সবচেয়ে অস্বস্তিতে ফেলেছিলেন। সাক্ষাৎকারে সেই অস্বস্তিকর পরিস্থিতির কথা জানান কোহলি। ‘মাস্টার ব্লাস্টার’ ড্রিঙ্কের জন্য ডেকেছিলেন কোহলিকে।

তখন সে কী অস্বস্তি কোহলির! ভারতীয় ঐতিহ্য মেনে বড় হয়েছেন বিরাট। বয়সে বড় কারোর সামনে কীভাবে কোহলি বলেন, তিনি মদ্যপান করেন বা পার্টিতে যান! শচীনের প্রস্তাবে অস্বস্তিতে পড়ে যান কোহলি। শচীনকে বিনীতভাবে বলেছিলেন, ‘আমি ড্রিঙ্ক করি না।’ শচীন ছাড়ার পাত্র নন।

পীড়াপীড়ি শুরু করেন মাস্টার। শচীনের অত্যধিক চাপাচাপিতে কোহলি শেষমেশ বলে ওঠেন, ‘ঠিক আছে আমি না হয় চারটি আইস কিউবই নেব।’

ভারতের ২০১১ বিশ্বকাপ জয়ের পরে পৃথিবী দেখেছে শচীনকে পিঠে নিয়ে ওয়াংখেড়েতে ঘুরেছেন কোহলি। কিন্তু কোহলির যখন ১২ বছর বয়স, সেই সময়ে একটি হোটেলে প্রথমবার শচীনকে দেখেছিলেন কোহলি। সেবার ভয়ে কোহলি কথা বলতে পারেননি শচীনের সঙ্গে।

Googleplus Pint
Noyon Khan
Manager
Like - Dislike Votes 2 - Rating 5 of 10
Relatedআরও দেখুনঅন্যান্য ক্যাটাগরি

পাঠকের মন্তব্য (0)