JanaBD.ComLoginSign Up

Internet.Org দিয়ে ফ্রিতে ব্রাউজ করুন আমাদের সাইট :) Search করুন , "জানাবিডি ডট কম" পেয়ে যাবেন ।

ফিলিস্তিন ইস্যুতে জাতিসংঘকে ট্রাম্পের হুঁশিয়ারি

আন্তর্জাতিক 24th Dec 2016 at 11:21pm 243
ফিলিস্তিন ইস্যুতে জাতিসংঘকে ট্রাম্পের হুঁশিয়ারি

দখলকৃত ফিলিস্তিনি ভূখণ্ডে ইসরাইলি বসতিস্থাপন বন্ধে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে রেজ্যুলেশন পাস করায় কড়া হুঁশিয়ারি দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

প্রস্তাব পাসের পর তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় টুইটার বার্তায় তিনি বলেন, '২০ জানুয়ারির (ট্রাম্পের শপথের) পর থেকে জাতিসংঘে বিষয়গুলো অন্যরকম হবে।'

ফিলিস্তিনি ভূখণ্ডে ইসরাইলি বসতিস্থাপন বন্ধের দাবি জানিয়ে শুক্রবার ঐতিহাসিক এই রেজ্যুলেশন পাস করে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদ। এতে বসতিস্থাপনকে বেআইনি ঘোষণা করে অবিলম্বে তা বন্ধ করার দাবি জানানো হয়েছে।

অতীতের অবস্থান থেকে সরে এই রেজ্যুলেশন পাসে যুক্তরাষ্ট্র তার ভেটো (আমি মানি না) ক্ষমতা প্রয়োগ করেনি। এবার যুক্তরাষ্ট্র ভোটদান থেকে বিরত ছিল।

মিশরের প্রস্তাবিত এই রেজ্যুলেশনের ওপর বৃহস্পতিবার ভোটাভুটি হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু যুক্তরাষ্ট্রের নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এবং ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিহুয়ার চাপের মুখে মিশর শেষ মুহূর্তে প্রস্তাব প্রত্যাহার করে নেয়।

তবে সহ-প্রস্তাবক নিউজিল্যান্ড, মালয়েশিয়া, ভেনিজুয়েলা এবং সেনেগাল প্রস্তাব উত্থাপনে অনড় থাকলে শুক্রবার নিরাপত্তা পরিষদে এর ওপর ভোটাভুটি হয়।

রেজ্যুলেশনের পক্ষে নিরাপত্তা পরিষদের ১৫ সদস্যের মধ্যে ১৪ সদস্যই ভোট দেয়। যুক্তরাষ্ট্র ভোটদান থেকে বিরত ছিল। এরআগে ২০১১ সালে এ ধরনের একটি রেজ্যুলেশন ভেটো দিয়ে বাতিল করে দিয়েছিল যুক্তরাষ্ট্র।

রেজ্যুলেশন ঠেকাতে ভেটো প্রয়োগের জন্য ওবামা প্রশাসনের প্রতি আহ্বান জানিয়েছিলেন ট্রাম্প এবং নেতানিয়াহু। ট্রাম্প মিশরের প্রেসিডেন্ট আবদেল ফাত্তাহ আল-সিসিকে ফোন দিলে শেষ মুহূর্তে প্রস্তাব প্রত্যাহার করে নেয় মিশর।

শেষ পর্যন্ত সব আশংকা উড়িয়ে দিয়ে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে পাস হওয়া এই রেজ্যুলেশনে ১৯৬৭ সাল থেকে পূর্ব জেরুজালেমসহ দখলকৃত ফিলিস্তিনি ভূখণ্ডে বসতিস্থাপন বন্ধে ইসরাইলের প্রতি দাবি জানানো হয়।

এতে বলা হয়, ‘দুই রাষ্ট্র সমাধান’ উদ্যোগ টিকিয়ে রাখতে দখলকৃত ভূখণ্ডে অবিলম্বে বসতিস্থাপন বন্ধ আবশ্যক। এই বসতি স্থাপনের কোনো আইনি ভিত্তি নেই এবং এটি আন্তর্জাতিক আইনের ঘোরতর লংঘন।

এই রেজ্যুলেশনকে আন্তর্জাতিক আইনের বিজয় এবং ইসরাইলি চরমপন্থার প্রত্যাখান হিসেবে দেখছে ফিলিস্তিন। দেশটির মতে, এই রেজ্যুলেশন ইসরাইলের অবৈধ বসতিস্থাপনের বিরুদ্ধে বিশ্ব সম্প্রদায়ের বার্তা।

রেজ্যুলেশন প্রত্যাখ্যান করে ইসরাইল বলছে, তারা নিরাপত্তা পরিষদের এই ইসরাইল-বিরোধী লজ্জাজনক রেজ্যুলেশন মানবে না।

শুরু থেকেই গুঞ্জন ছিল বর্তমান ওবামা প্রশাসন এ প্রস্তাবে ভেটো দেয়ার ব্যাপারে ইচ্ছুক নয়। সে কারণেই ট্রাম্প এনিয়ে ব্যাপক কূটনৈতিক তৎপরতা চালান। কিন্তু শেষ পর্যন্ত ব্যর্থ হন।

প্রস্তাবটি পাস হওয়ায় ইহুদিপন্থী কয়েকজন রিপাবলিকান সিনেটর ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন। এমনকি একজন সিনেটর 'দ্বি-দলীয় মতৈক্য' প্রতিষ্ঠা করে জাতিসংঘে মার্কিন অনুদান কমিয়ে দেয়ারও হুমকি দিয়েছেন।

সূত্রঃ যুগান্তর অনলাইন

Googleplus Pint
Mizu Ahmed
Manager
Like - Dislike Votes 2 - Rating 5 of 10
Relatedআরও দেখুনঅন্যান্য ক্যাটাগরি

পাঠকের মন্তব্য (0)