JanaBD.ComLoginSign Up

শরীয়তপুরে বিয়ে ঘিরে মারামারি!

দেশের খবর 13th Jan 2017 at 2:48pm 250
শরীয়তপুরে বিয়ে ঘিরে মারামারি!

শরীয়তপুরের ভেদরগঞ্জ উপজেলার উত্তর তারাবুনিয়া ইউনিয়র পরিষদের চেয়ারম্যান ইউনুস সরকারের নির্দেশে ২৪ যুবককে জুতাপেটা ও অর্থদণ্ড করার অভিযোগ উঠেছে।

গত ৭ জানুয়ারি শনিবার উত্তর তারাবুনিয়া ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ে হাজার হাজার মানুষের উপস্থিতিতে জুতাপেটা ও অর্থদণ্ড হুকুম দেয়া হয়।

দণ্ডিত যুবকদের বিরুদ্ধে এলাকার এক বিয়ে বাড়িতে মারপিট করে অতিথিদের আহত করায় অভিযোগ ছিল। বিয়ে বাড়িতে নাচগানের আয়োজন করার অপরাধে ৫০ হাজার টাকা দণ্ডিত হয়েছেন কনের পিতা।

স্থানীয়, প্রত্যক্ষদর্শী ও কনের পারিবারিক সূত্র জানায়, গত ৩০ ডিসেম্বর ভেদরগঞ্জের উত্তর তারাবুনিয়া ইউনিয়নের রসুল মালের বড় মেয়ে সাবিনা আক্তারের বিয়ের দিন ছিল। এ উপলক্ষ্যে ২৯ ডিসেম্বর ছিল কনে সাবিনার গায়ে হলুদের অনুষ্ঠান। গাঁয়ে হলুদের অনুষ্ঠানে চাঁদপুর থেকে সাউন্ড সিস্টেম ও নৃত্যদলের মেয়েদের চুক্তি করে কনের বাড়িতে আনা হয়।

গাঁয়ে হলুদের অনুষ্ঠান উপভোগ করতে স্থানীয় যুবকসহ স্থানীয় কনের পিতার বাড়িতে ভিড় জমায়। সেখানে কনের মামা রাসেলের সাথে স্থানীয় শফি মাঝির ছেলের কথা কাটাকাটি ও হাতাহাতি হয়।

বিয়েরদিন শুক্রবার বরযাত্রীরা কনে সাবিনাকে নিয়ে যাওয়ার পরেই শফি মাঝির ছেলে তার সহযোগী ও ভাড়াটে বখাটেদেও নিয়ে বিয়ে বাড়িতে হামলা চালায়। এতে কনের মামা মনির, আজি রকমান, এরশাদ ও ফয়সাল গুরুতর আহত হয়। আহতরা চাঁদপুর ও কুমিল্লায় চিকিৎসাধীন।

বিষয়টি স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ইউনুস সরকার গত ৭ জানুয়ারি পরিষদ ভবনে স্থানীয়দের উপস্থিতিতে সমাধান করেন। তখন প্রত্যেক অভিযুক্তকে আড়াই হাজার টাকা করে ৬০ হাজার টাকা জরিমান ও ১০টি করে জুতা পেটার আদেশ প্রদান করেন চেয়ারম্যান ইউনুস সরকার।

তখন ইউনিয়ন পরিষদের সম্মেলন কক্ষে চেয়ারম্যানের হুকুমে অভিযুক্ত যুবকদের অভিভাবকরা নিজ নিজ সন্তানদের জুতাপেটা করেন। সেখান থেকে কনের পিতা রসুল মালের বাড়িতে অনৈতিক ভাবে নাচ-গানের আয়োজন করার অপরাধে কণের পিতা রসুল মালকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

প্রত্যক্ষদর্শী রশিদ মোল্যা, আজুল মাল, সেরাজল সহ অনেকে জানায়, আমাদের চেয়ারম্যা ইউনুস সরকার খুব সৎ মানুষ।

চেয়ারম্যান হুকুম দেয় প্রত্যেক অভিযুক্তের আড়াই হাজার টাকা জরিমানা ও ১০টি করে জুতাপেটার। এ সময় বিয়ে অনুষ্ঠানে গানবাজনার আয়োজক মেয়ের পিতাকেও ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেন।

কণের পিতা রাসুল মাল জানায়, আমার বড় মেয়ে সাবিনার বিয়েতে গান বাজনার আয়োজন করি। সেখানে স্থানীয় শফি মাঝির ছেলে তার বখাটে বন্ধু ও ভাড়াটে লোকদের নিয়ে পরিবেশ নষ্ট করে। আমার শ্যালক রাসেল প্রতিবাদ করায় তার সাথে কথা কাটাকাটি ও হাতাহাতি হয়।

স্থানীয় ভাবে বিষয়টি মীমাংসা হওয়ার পরেও শফি মাঝির ছেলে তার লোকজন নিয়ে এসে আমার বাড়িতে হামলা চালায়।

এতে আমার অন্যান্য ৪ শ্যালক গুরুতর আহত হয়। স্থানীয় চেয়ারম্যান ইউনুস সরকার পরিষদে বিচার বসায়। সেখানে বখাটেদের প্রত্যেককে টাকা জরিমানা ও জুতাপেটার হুকুম দেন। বাড়িতে গান-বাজনা আয়োজন করার অপরাধে আমাকেও ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেন চেয়ারম্যান ইউনুস সরকার।

উত্তর তারাবুনিয়া ইউনিয়ন পরিষদে গিয়ে চেয়ারম্যানকে পাওয়া যায়নি।

Googleplus Pint
Noyon Khan
Manager
Like - Dislike Votes 5 - Rating 4 of 10
Relatedআরও দেখুনঅন্যান্য ক্যাটাগরি

পাঠকের মন্তব্য (0)