JanaBD.ComLoginSign Up
JanaBD এনড্রয়েড এপ, ডাউনলোড করে সাথে থাকুন । Sms এবং বিভিন্ন টপিক Offline এ Favourite ও Save করে ব্যবহার করুন ।
Internet.Org দিয়ে ব্রাউজ করুন আমাদের সাইট ফ্রী , "জানাবিডি ডট কম"

নানিকে ধর্ষণ করে নাতনিকে নিয়ে পলায়ন

দেশের খবর 19th Apr 2017 at 10:06am 457
নানিকে ধর্ষণ করে নাতনিকে নিয়ে পলায়ন

নিজের নাতনি মনিষাকে (৪) সন্তান পরিচয় দিয়ে সোমবার ধর্মভগ্নিপতি লিটনের সঙ্গে উত্তরার একটি আবাসিক হোটেলে উঠেছিলেন গৃহবধূ পুষ্প রানী (৪০)। রাতে তাকে হোটেলকক্ষে ধর্ষণের পর হত্যা করে মনিষাকে নিয়ে পালিয়ে যায় লিটন। এরপর মঙ্গলবার সকালে পুলিশ হোটেল থেকে পুষ্প রানীর লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢামেক মর্গে পাঠায়।

উত্তরা পশ্চিম থানার ওসি আলী হোসেন জানান, মঙ্গলবার সকালে আবদুল্লাহপুরের নীলা হোটেলে ‘পুষ্প নামে নিবন্ধিত’ ওই নারীর লাশ উদ্ধার করা হয়। ধারণা করা হচ্ছে, সোমবার রাত ১২টা থেকে ভোর ৩টার মধ্যে ওই নারীকে হত্যা করা হয়েছে।

হোটেলের ব্যবস্থাপকের উদ্ধৃতি দিয়ে তিনি বলেন, সোমবার বিকাল সাড়ে ৫টায় স্বামী-স্ত্রী-সন্তান পরিচয় দিয়ে ওই নারীর সঙ্গে এক পুরুষ ও এক শিশু হোটেলের চতুর্থ তলার ৪১৪ নম্বর কক্ষে ওঠে। খাতায় ওই নারীর নাম পুষ্প (৩০) ও পুরুষটির নাম দুর্জয় (৪০) লেখা রয়েছে। পুষ্প রানীর সুরতহাল রিপোর্টে বলা হয়েছে, উত্তরা পশ্চিম থানাধীন ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের পশ্চিম পাশে আবদুল্লাহপুর বাসস্ট্যান্ড সংলগ্ন নীলা আবাসিক হোটেলের ৪১৪ নম্বর কক্ষ থেকে ওই নারীর লাশ উদ্ধার করা হয়। তার গলার বাম পাশের পেছন দিক থেকে সাড়ে চার ইঞ্চি কাটা, মাথার উপরে সামান্য জখম। যৌনাঙ্গে ক্ষতচিহ্ন রয়েছে।

প্রাথমিক তদন্তে পুলিশ নিশ্চিত হয়েছে তাকে পরিকল্পিতভাবে ধর্ষণের পর হত্যা করে সঙ্গে থাকা শিশুটিকে নিয়ে পালিয়ে গেছে ঘাতক। মঙ্গলবার বিকাল ৪টায় ঢামেক মর্গে এসে পুষ্প রানীর লাশ শনাক্ত করেন তার আত্মীয় মাধব চন্দ্র শীল। তিনি জানান, তার চাচাত ভাইয়ের শ্বশুর দিনেশ চন্দ্র শীল বাড্ডা থানার গুদারাঘাট এলাকায় ভাড়া বাসায় থাকেন। দিনেশ চন্দ্র শীলের স্ত্রী পুষ্প রানীর সঙ্গে গোপনে তার ধর্মভগ্নিপতি লিটনের পরকীয়া চলে আসছিল। লিটনের বাড়ি গাজীপুরে। তিনি তেজগাঁওয়ের সাত রাস্তায় জরিপ অফিসের রেকর্ড রুমে কাজ করতেন।

মঙ্গলবার বিকালে লিটন পুষ্প রানীর বাসায় এসে জানান, একটি এনজিও থেকে ৫০ হাজার টাকা ঋণ তোলার জন্য পুষ্প রানীকে বাইরে যেতে হবে। তার কথামতো পুষ্প রানী রেডি হন। এ সময় যমুনার মেয়ে মনিষা নানির সঙ্গে যাবে বলে বায়না ধরে। পরে পুষ্প রানী নাতনি মনিষাকে সঙ্গে নিয়ে যান। এরপর সোমবার সন্ধ্যা থেকেই পুষ্প রানী ও লিটনের মোবাইল ফোন বন্ধ পান পরিবারের সদস্যরা। সোমবার দিবাগত রাত ১২টার দিকে একটি মোবাইল নাম্বার থেকে পুষ্প রানীর মেয়ে যমুনার মোবাইলে ফোন করে জানানো হয় পুষ্প রানী ডিবি অফিসে আছেন। সেখানে যোগাযোগ করতে। রাতেই পরিবারের সদস্যরা ছুটে আসেন মিন্টো রোডে ডিবি কার্যালয়ে। এখানে পুষ্প রানীকে না পেয়ে তারা যোগাযোগ করেন বাড্ডা থানায়।

মঙ্গলবার বাড্ডা থানা পুলিশের মাধ্যমে জানতে পারেন উত্তরায় হোটেল থেকে এক নারীর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। তারা সেখানে ছুটে যান। মাধব চন্দ্র ঢামেক মর্গে এসে তার লাশ শনাক্ত করেন। পুষ্প রানীর বড় ভাই জগদিশ চন্দ্র শীল জানান, পাঁচ ভাই তিন বোনের মধ্যে পুষ্প রানী সবার ছোট। এখন শিশু মনিষার খোঁজ জানতে চান স্বজনরা। ঘাতক লিটন তাকে বাঁচিয়ে রেখেছে নাকি মেরে ফেলেছে এ নিয়ে দুশ্চিন্তায় তারা। উত্তরা পশ্চিম থানার এসআই জানে আলম দুলাল জানান, ঘাতক লিটনকে গ্রেফতার ও শিশুটিকে উদ্ধারে বিভিন্ন স্থানে অভিযান চলছে।

তথ্যসূত্রঃ যুগান্তর

JanaBD এনড্রয়েড এপ, ডাউনলোড করে সাথে থাকুন । Sms এবং বিভিন্ন টপিক Offline এ Favourite ও Save করে ব্যবহার করুন ।

Googleplus Pint
Like - Dislike Votes 8 - Rating 5 of 10
Relatedআরও দেখুনঅন্যান্য ক্যাটাগরি

পাঠকের মন্তব্য (0)