JanaBD.ComLoginSign Up

জানা হবে অনেক কিছু, চালু হয়েছে জানাবিডি (JanaBD) এন্ডয়েড এপস । বিস্তারিত জানুন..
Internet.Org দিয়ে ব্রাউজ করুন আমাদের সাইট ফ্রী , "জানাবিডি ডট কম"

আইপিএলের ১০ বছর : এঁরাই হলেন সেরা ১০ অধিনায়ক!

ক্রিকেট দুনিয়া 20th Apr 2017 at 4:25pm 491
আইপিএলের ১০ বছর : এঁরাই হলেন সেরা ১০ অধিনায়ক!

ভারতের জনপ্রিয় ক্রিকেট বিনোদন ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল) দশ বছরে পা রেখেছে। মাত্র কয়েক বছরেই জমপ্রিয়তার নিরিখে এক অনন্য পর্যায়ে পৌঁছিয়েছে আইপিএল। শুধু ভারতে নয় ভারতের বাইরেও ক্রিকেটের এই লিগ টুর্নামেন্টের জনপ্রিয়তা কিছু কম নয়।

এই টুর্নামেন্টে বহু দল এসেছে বহু দল গিয়েছে। তবে একটা দল তখনই সাফল্য পায় যখন সে দলের অধিনায়ক দক্ষ হাতে নিজের ক্ষমতা সামলাতে পারেন।

গত ৯ বছরে আমরা আইপিএলের মঞ্চে অসাধারণ কিছু অধিনায়ককে পেয়েছি। এমনই সেরা ১০ অধিনায়কের তালিকা দেখে নেওয়া যাক একঝলকে। জয়ের শতকরা হার হিসাবেই এখানে ১ থেকে ১০ এর তালিকা দেওয়া হল।

রোহিত শর্মা
মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের অধিনায়ক রোহিত শর্মা দলকে ২বার সেরার শিরোপা জিতিয়েছেন। ২০১৩ সালে মুম্বইয়ের অধিনায়ক হন রোহিত শর্মা।

৬৩টি ম্যাচে দলের অধিনায়কত্ব করেন রোহিত।
৩৮টি ম্যাচে জয় পান, কিন্তু হার হয় ২৫টি ম্যাচে।
রোহিতের জয়ের শতকরা হার ৬০.৩১।

শচীন টেন্ডুলকর
মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের প্রথম অধিনায়ক শচীন টেন্ডুলকর। ২০০৮ সাল থেকে ২০১১ সাল পর্যন্ত মুম্বইয়ের অধিনায়কত্ব করেন শচীন।

৫১টি ম্যাচে মুম্বইয়ের অধিনায়কত্ব করেন শচীন।
৩০টি ম্যাচে জয় পান, হার হয় ২১টি ম্যাচে।
শচীনের জয়ের শতকরা হার ৫৮.৮২ ।

গৌতম গম্ভীর
প্রথমে দিল্লি ডেয়ারডেভিলসের হয়ে খেলেছিলেন গৌতম গম্ভীর। পরে ২০১১ সাল থেকে শুরু করে বর্তমানেও কলকাতা নাইট রাইডার্সের অধিনায়ক গৌতম গম্ভীর। এখনও পর্যন্ত গম্ভীরের নেতৃত্বে ২০১২ সালে ও ২০১৪ সালে সিরিজ জেতে কলকাতা।

১১২টি ম্যাচে অধিনায়কত্ব করেছেন গম্ভীর।
৬৫টি ম্যাচে জয় পান, হার হয়েছে ৪৬টি ম্যাচে।
গম্ভীরের জয়ের শতকরা হার ৫৮.৪৮ ।

মহেন্দ্র সিং ধোনি
ধোনি নিশ্চিতভাবে আইপিএল ইতিহাসে অন্যতম সেরা অধিনায়ক। ২০১৭ সালেই রাইজিং পুনে সুপারজায়েন্টস কর্তৃপক্ষে তাঁকে অধিনায়কের পদ থেকে সরিয়ে তরুণ স্টিভ স্মিথকে অধিনায়ক বানায়। ২০০৮ সাল থেকে ২০১৬ সাল পর্যন্ত অধিনায়ক ছিলেন ধোনি।

১৪৩টি ম্যাচে অধিনায়কত্ব করেছেন ধোনি।
৮৩টি ম্যাচে জয় পেয়েছেন, হেরেছেন ৫৯টি ম্যাচে।
ধোনির জয়ের শতকরা হার ৫৮.৪৫ ।

ডেভিড ওয়ার্নার
২০১৩ সাল থেকে সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের অধিনায়ক হন ডেভিড ওয়ার্নার। গত বছরেই দলকে সেরার শিরোপা জেতাতে সফল বব তিনি। এখনও পর্যন্ত হায়দ্রাবাদ ছাড়াও দিল্লি ডেয়ারডেভিলের হয়ে অধিনায়কত্ব করেছেন।

৩৯টি ম্যাচে অধিনায়ক ছিলেন ওয়ার্নার।
২২টি ম্যাচে জয় এসেছে, হেরেছেন ১৭টি ম্যাচে।
ওয়ার্নারের জয়ের শতকরা হার ৫৬.৪১ ।

শেন ওয়ার্ন
২০০৮ সালের প্রথম আইপিএল চ্যাম্পিয়ান রাজস্থান রয়্যাল্সের অধিনায়ক ছিলেন অস্ট্রেলিয়ার জনপ্রিয় স্পিনার শেন ওয়ার্ন। ২০০৮ সাল থেকে ২০১১ সাল পর্যন্ত দলের অধিনায়ক ছিলেন তিনি।

৫৫টি ম্যাচে অধিনায়ক ছিলেন শেন ওয়ার্ন।
৩০টি ম্যাচে জয় এসেছে, হেরেছেন ২৪টি ম্যাচে
ওয়ার্নের জয়ের শতকরা হার ৫৫.৪৫ ।

বীরেন্দ্র শেহবাগ
দিল্লি ডেয়ারডেভিল আক্রমণাত্মক অধিনায়ক ছিলেন বীরেন্দ্র শেহবাগ। পরে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবেরও অধিনায়ক হন তিনি। ২০০৮ সাল থেকে ২০১৫ সাল পর্যন্ত আইপিএলে অধিনায়ক ছিলেন তিনি।

৫৩টি ম্যাচে অধিনায়ক ছিলেন শেহবাগ।
২৯টি ম্যাচে জিতেছেন তিনি, হেরেছেন ২৪টি ম্যাচে।
শেহবাগের জয়ের শতকরা হার ৫৩.৭৭ ।

বিরাট কোহলি
২০১১ সাল থেকে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোরের অধিনায়ক বিরাট।

৭৫টি ম্যাচে অধিনায়ক থেকেছেন বিরাট।
৩৭টি ম্যাচে জিতেছেন তিনি, হেরেছেন ৩৩টি ম্যাচে।
কোহলির জয়ের শতকরা হারা ৫২.৭৭ ।

অ্যাডম গিলক্রিস্ট
ডেকান চার্জার্সের প্রথম অধিনায়ক ছিলেন অ্যাডম গিলক্রিস্ট। পরে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের অধিনায়কও হয়েছিলেন তিনি। ২০০৮ সাল থেকে ২০১৩ সাল পর্যন্ত খেলেছিলেন তিনি। ২০০৯ সালের আইপিএল সিরিজও জিতেছিল ডেকান চার্জার্স। যদিও এই দলটি এখন প্রতিযোগীতায় নেই।

৭৪টি ম্যাচে অধিনায়ক ছিলেন গিলক্রিস্ট।
৩৫টি ম্যাচ জিতেছেন, হেরেছেন ৩৯টি ম্যাচে।
গিলক্রিস্টের জয়ের শতকরা হার ৪৭.২৯ ।

রাহুল দ্রাবিঢ়
প্রাক্তন ভারতীয় অধিনায়ক রাহুল দ্রাবিঢ় ব্যাঙ্গালোর ও রাজস্থান রয়্যালস দুই দলেরই অধিনায়ক ছিলেন। ২০০৮ সাল থেকে ২০১৩ সাল পর্যন্ত আইপিএল খেলছিলেন তিনি।

৪৮টি ম্যাচে অধিনায়ক ছিলেন দ্রাবিঢ়।
২২টি ম্যাচ জিতেছেন, হেরেছেন ২৬টি ম্যাচ।
দ্রাবিঢ়ের জয়ের শতকরা হার ৪৫.৮৩।

তথ্যসূত্রঃ অনলাইন


জানা হবে অনেক কিছু, চালু হয়েছে জানাবিডি (JanaBD) এন্ডয়েড এপস । বিস্তারিত জানুন..

Googleplus Pint
Like - Dislike Votes 10 - Rating 5 of 10
Relatedআরও দেখুনঅন্যান্য ক্যাটাগরি

পাঠকের মন্তব্য (0)