JanaBD.ComLoginSign Up

যেসব কারণে মেজো সন্তানেরা অন্যদের থেকে ব্যতিক্রম!

লাইফ স্টাইল 19th Apr 2016 at 2:40pm 214
যেসব কারণে মেজো সন্তানেরা অন্যদের থেকে ব্যতিক্রম!

পরিবারের মেজো সন্তানকে নিয়ে অনেক সময় বাবা-মায়ের দুশ্চিন্তার সীমা থাকে না। কারণ বেশীরভাগ সময়ই পরিবারের মেজো সন্তানকে হতে দেখা যায় স্বাধীনচেতা, আত্মনির্ভরশীল এবং একেবারে আলাদা মন-মানসিকতার মানুষ। কিন্তু সত্যিকার অর্থে পরিবারের মেজো সন্তানটি হয়ে থাকে সবচাইতে ভালো মনের মানুষ।

পরিবারের বড় সন্তানেরা অনেক বেশি আত্মত্যাগী ও ছোটরা উড়নচণ্ডী হয়ে থাকে বলেন অনেকেই। কিন্তু মেজো জনের বৈশিষ্ট্য কিন্তু সহজে চোখে পড়ে না। তারা কতোটা চিন্তা করে চলেও তাও অনেকে বুঝতে পারে না। যে কারণে পরিবারের মেজো সন্তানেরা অন্য সব সন্তানদের থেকে আলাদা।


# মেজো ছেলেমেয়েরা সম্পর্কের মূল্য অনেক বেশি ভালো বুঝেন
বড় এবং ছোটদের সঙ্গে কি রকমের ব্যবহার করতে হয়, কীভাবে চললে সম্পর্ক বেশি ভালো থাকে তা মেজোরাই ভালো বুঝেন। কারণ তিনি তার বড় ভাই-বোনের কোনো ব্যবহারে কষ্ট পেয়ে থাকলে নিজের ছোটোজনের সঙ্গে কীভাবে ব্যবহার করতে হবে তা বুঝে যান।

এবং তিনি নিজের বড় কারো সাথে যেভাবে ব্যবহার করবেন সেটাই তিনি তার ছোটজনের কাছ থেকে ফিরে পাবেন ভেবে তাও নিজে থেকেই শিখে নেন। এই দুটি বিষয় কিন্তু পরিবারের বড় এবং ছোটো সন্তানেরা এভাবে ভাবতে পারে না।


# বাবা-মায়ের মেজো সন্তান আত্মনির্ভরশীল
বড় সন্তানের প্রতি বাবা মায়ের আলাদা টান থাকে কারণ তিনি প্রথম সন্তান। পরিবারের সকলের আদরের সন্তান হিসেবেই মানুষ হন ছোটো সন্তান। কিন্তু সত্যি বলতে কি, বাবা-মা সন্তানদের মধ্যে পার্থক্য না করলেও বড় ও ছোটো সন্তানকে যেভাবে সময় দিয়ে থাকেন তা মেজো সন্তানকে দিতে পারেন না বেশীর ভাগ সময়েই। আর সে কারণেই পরিবারের মেজো সন্তানেরা অনেক বেশি আত্মনির্ভরশীল হয়ে গড়ে উঠে।


# মেজো সন্তানেরা সবার সহজে মিশতে পারেন
ছোটো-বড় সকলের সঙ্গেই বেশ ভালো করে মিশতে পারার একটি গুণ থাকে মেজো সন্তানদের। যা পরিবারের বড় ও ছোটো সন্তানের মধ্যে খুব বেশি দেখা যায় না।

একারণে আত্মীয়স্বজন থেকে সকলেই মেজো সন্তানটিকে বেশ পছন্দ করে ফেলেন। আর এ গুণটি তারা বুঝতে পারার বয়স থেকে বড় ও ছোটো ভাইবোনের সঙ্গে কীভাবে মিশতে হবে সহজাত প্রবৃত্তি থেকেই শিখে নেন।


# অনেক বেশি সৃজনশীল হয়ে থাকেন মেজোরা
বড় ও ছোটো সন্তানদের তুলনায় মেজো সন্তানটি অনেক বেশি সৃজনশীল হয়ে থাকেন। অন্য সকলের থেকে একটু আলাদা প্রকৃতির হয়ে থাকে তাদের চিন্তাভাবনা। দেখা যায় বড় বা ছোটো ভাই বোন স্বাভাবিক নিয়মে জীবন যাপন করে বেশ বড় স্থানে প্রতিষ্ঠিত হয়ে কাজ করছেন কিন্তু মেজোজন নিজের সৃজনশীলতাকে প্রাধান্য দিয়ে নিজের নিয়মে চলছেন।


# সঠিকভাবে পরিচালনা করার ক্ষমতা থাকে মেজোদের
কাকে কি বলে, কীভাবে চালানো সম্ভব এই গুণটিও পরিবারের বড় ও ছোটো ভাইবোনের মধ্যে থাকতে থাকতে রপ্ত হয়ে যায় পরিবারের মেজো সন্তানের। এতে করে বাইরের জগতেও কার সাথে কীভাবে কথা বলে তাকে পরিচালনা করা সম্ভব তা তৈরি হয় নিজে থেকেই।

Googleplus Pint
Noyon Khan
Manager
Like - Dislike Votes 11 - Rating 7.3 of 10
Relatedআরও দেখুনঅন্যান্য ক্যাটাগরি

পাঠকের মন্তব্য (0)