JanaBD.ComLoginSign Up

শরীয়তপুরে বেঁধে রোদে পোড়ানো শিশুটি ১৩ ঘন্টা পর অবমুক্ত!

দেশের খবর 27th Apr 2016 at 9:48am 473
শরীয়তপুরে বেঁধে রোদে পোড়ানো শিশুটি ১৩ ঘন্টা পর অবমুক্ত!

শরীয়তপুরে চুরির অপরাধে শিকল দিয়ে তালাবদ্ধ করে রাখা ৮ বছরের শিশু নয়নকে মুক্ত করা হয়েছে ১৩ ঘন্টা পরে। সোমবার সকাল সাড়ে ৯টার সময় শিশুটিকে তালাবদ্ধ করে বাড়ির পাশে একটি পাকা অবকাঠামোর উপর রাখা হয়। রাত সাড়ে ১০টার পরে শিশুটি অসুস্থ হয়ে পরলে অবমুক্ত করে বিছানায় দেয়া হয়। শিশুটির সারা রাত কোন জ্ঞান ছিল না।

মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে শিশুটিকে ডেকে ঘুম থেকে জাগানো হয়। তাই মাদ্রাসায় যেতে পারেনি। দুপুর পর্যন্ত বাড়িতেই ছিল নয়ন। দুপুরের খাবার খেয়ে বন্ধুদের সাথে খেলতে গিয়েছে বলে জানায় শিশুটির পরিবার।

মঙ্গলবার দুপুরের পরে বেঁধে রাখা শিশুর খোঁজে যাওয়া হয় ডোমসার ইউনিয়নের চর কোয়ারপুর গ্রামে। তখন কথা হয় নয়নের মা মর্জিনা বেগম, চাচা মোঃ আরিফ, বড় ভাই বাদল ও বন্ধু সাইদের সঙ্গে।

নয়নের মা মর্জিনা বেগম বলেন, নয়নের পড়া-লেখায় মনোযোগ ফিরিয়ে আনতেই শাস্তি দেয়া হয়েছে। এ শাস্তির পর নয়নের কিছুটা পরিবর্তন হয়েছে বলে ধারণা তাদের। ঘুম থেকে দেরিতে উঠায় নয়নকে মাদরাসায় পাঠানো সম্ভব হয় নাই।

নয়নের চাচা মোঃ আরিফ জানায়, ছেলেকে শিক্ষিত করার জন্য নয়নের পিতা মজিবর মাঝি অনেক চেষ্টা করছে। শিশু নয়ন তার বাপের ইচ্ছা পূরণ করতে ব্যর্থ ছিল তাই তাকে শিকল দিয়ে বেঁধে রোদে রেখে শাস্তি দেয়া হয়েছে।

নয়নের বন্ধু আবু সাইদ জানায়, নয়ন শুধু দুষ্টামী বেশী করে। লেখা পড়ায় নয়ন ভালো। সোমবার নয়নের ১৪ বছরের বোন বৃষ্টির বিয়ের অনুষ্ঠান ছিল। ওই দিন নয়ন তার বাপের কাছে টাকা চেয়েছিল আরসি কোলা কেনার জন্য টাকা না দেয়ায় ৩টি আরসি কোলা চুরি করেছে।

বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন শরীয়তপুর জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট মাসুদুর রহমান মাসুদ বলেন, শিশু নয়নকে শিকল দিয়ে বেঁধে রেখে সম্পূর্ন মানবাধিকারিআইন লঙ্ঘন করেছে। এটা শিশু নির্যাতনের শামিল। জন সবার্থে যে কেউ বাদী হয়ে নয়নের বাবা-মা সহ সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে মামলা করতে পারে।

উল্লেখ্য যে, ডোমসার চর কোয়ারপুর গ্রামের হাজী আবু সিদ্দিক ঢালীর কান্দি এলাকার ৮ বছরের শিশু নয়নকে শিকল দিয়ে বৈশাখের খড়তাপ রোদে তালাবদ্ধ করে রাখা হয়েছে।

Googleplus Pint
Noyon Khan
Manager
Like - Dislike Votes 7 - Rating 4.3 of 10
Relatedআরও দেখুনঅন্যান্য ক্যাটাগরি

পাঠকের মন্তব্য (0)