JanaBD.ComLoginSign Up

ভেষজ গুণের অধিকারী ঢেঁড়শ!

সাস্থ্যকথা/হেলথ-টিপস 30th May 16 at 7:30am 285
ভেষজ গুণের অধিকারী ঢেঁড়শ!

ঢেঁড়শের সংস্কৃত নাম রোমশ। আয়ুর্বেদ মতে এ সবজিটি খুবই কার্যকরী। এটি কোষ্ঠ পরিষ্কারক, পিত্তবিকার নাশক, রুচিবর্ধক তবে বায়ুবর্ধকও বটে; রুক্ষ, মূত্রবর্ধক ও অশ্মরী দূরীকারক অর্থাৎ শরীরে জমা পাথর গলিয়ে বের করে দেয়। এটিকে ডিনডিশও বলা হয়; ইংরেজিতে বলা হয় ওকরা বা লেডিস ফিঙ্গার।

এ সবজিটি ডায়াবেটিসে বিশেষ উপকারী, পেসারের অসুখ সারায়, পুষ্টি গুণে ভরপুর। এটি মেধা বাড়ায়; তবে বাতবর্ধকও। ঢেঁড়শ বিভিন্ন অসুখের চিকিৎসায় ভেষজ হিসেবে ব্যবহার করা যায়।

নিচে এর ব্যবহার বিধি দেয়া হলো-

প্রস্রাবের উগ্র গন্ধ : কাঁচা ঢেঁড়শ বীজ বাদ দিয়ে ২৫-৩০ গ্রাম নিতে হবে। তারপর ১ লিটার পানিতে সিদ্ধ করে আন্দাজ ২৫০-৩০০ মিলিলিটার থাকতে নামিয়ে ছেঁকে ঠাণ্ডা করে পানিটা সারা দিনে দুই-তিনবারে পান করতে হবে। এভাবে কয়েক দিন খেলে দেখা যাবে উগ্র গন্ধটা কমে গেছে।

প্রস্রাবের স্বল্পতা : যারা পানি কম পান করে না, অথচ পান করার পরিমাণ মতো প্রস্রাব হয় না, তারা বীজ বাদ দিয়ে কাঁচা ঢেঁড়শ ৪-৫ কাপ পানিতে সিদ্ধ করে দেড়-দুই কাপ থাকতে নামিয়ে ছেঁকে চট্চটে সে পিচ্ছিল পানি পান করলে প্রস্রাব সহজভাবে হবে ও পরিমাণে বেড়ে যাবে।

খুসখুসে কাশি : বীজ বাদ দিয়ে কাঁচা ঢেঁড়শ কুচিকুচি করে কেটে কড়া রোদে শুকিয়ে সেগুলো গুঁড়ো করে ৫-৭ গ্রাম পরিমাণে নিয়ে চিনির কড়া রসে মেড়ে মোমবাতির মতো পাকিয়ে রাখতে হবে। গলা খুসখুস করলেই একটু চুষে খেলে এ কাশি চলে যাবে। যেকোনো বয়সের লোক এটি খেতে পারে এবং সাথে সাথে উপকার পাওয়া যায়।

ডায়াবেটিস বা ব্লাড সুগার (রক্ত শর্করা) : রক্তে শর্করা বাড়লে বা বাড়তে থাকলে কালো জামের বিচির গুঁড়ো ১ গ্রাম নিয়ে ৩-৪টি কাঁচা ঢেঁড়শের সিদ্ধ পানির সাথে প্রতিদিন করে কিছু দিন খেলেই এটি আর থাকবে না।

মূত্রদোষ : ধাতুক্ষরণে মূত্রনালী টিপলে একটি তরল পিচ্ছিল পাতলা আঠা বের হয়। এ ত্রুটি প্রোস্টেট গ্ল্যান্ডের ক্ষরণও হতে পারে। এ রকম ক্ষরণ হলে ২৫-৩০ গ্রাম কাঁচা ঢেঁড়শ (৩-৪ টা মতো) বেটে ঠাণ্ডা পানিতে মিশিয়ে পাতলা কাপড়ে ছেঁকে কয়েক দিন খেতে হয়। এর ফলে দুই-তিন দিনের মাঝে অসুবিধাটা চলে যাবে। তবে হজম শক্তি ভালো না থাকলে কাঁচা বেটে না খেয়ে পানিতে সিদ্ধ করে ছেঁকে খাওয়া ভালো।

দাস্ত অপরিষ্কার : দাস্ত অপরিষ্কার, খাওয়ার সাথে সাথে সারাশরীরে কামড়ানি, এমন অবস্থায় বীজ বাদ দিয়ে ২০-২৫ গ্রাম ঢেঁড়শ ৩ কাপ পানিতে সিদ্ধ করে এক কাপ থাকতে নামিয়ে ছেঁকে নিয়ে সে পানি মাঝে মাঝে খেতে হবে। তাতে অসুবিধাটা চলে যাবে, সে সাথে প্রস্রাবও পরিষ্কার হবে।

অপুষ্টি : রোজ সকালে কয়েকটি নরম ঢেঁড়শ খেলে অপুষ্টি দূর হয়।

আমাশয় : গাছের মূল পিষে চিনি মিশিয়ে খেলে আমাশয় সারে।

Googleplus Pint
Noyon Khan
Manager
Like - Dislike Votes 9 - Rating 5.6 of 10
Relatedআরও দেখুনঅন্যান্য ক্যাটাগরি
রক্তস্বল্পতা দূর করে যেসব খাবার রক্তস্বল্পতা দূর করে যেসব খাবার
Yesterday at 6:38pm 124
হঠাৎ মাথাব্যথায় যা করবেন হঠাৎ মাথাব্যথায় যা করবেন
Yesterday at 3:48pm 156
হার্ট ভাল রাখতে ৪টি জরুরি বিষয় হার্ট ভাল রাখতে ৪টি জরুরি বিষয়
Mon at 11:02pm 210
আলুর খোসার এত গুণ! আলুর খোসার এত গুণ!
Mon at 8:06pm 206
ইসবগুলের ভুসির যত গুণ ইসবগুলের ভুসির যত গুণ
Mon at 6:27pm 254
লিভার সুস্থ রাখবে তিন খাবার লিভার সুস্থ রাখবে তিন খাবার
Mon at 6:10pm 158
অ্যাসিডিটি বেড়ে যাওয়ার ১০ কারণ অ্যাসিডিটি বেড়ে যাওয়ার ১০ কারণ
Sun at 9:15pm 231
ঘুমের ওষুধে ভরসা! রাতে জাস্ট একটা কলা ঘুমের ওষুধে ভরসা! রাতে জাস্ট একটা কলা
Sun at 2:43pm 186

পাঠকের মন্তব্য (0)

Recent Posts আরও দেখুন

টিভিতে আজকের চলচ্চিত্র : ১৮ অক্টোবর, ২০১৭
টিভিতে আজকের খেলা : ১৮ অক্টোবর, ২০১৭
দীপিকার বিদ্যার দৌড়
রেসিপি : পুষ্টিকর চিকেন মিটবল স্যুপ
চালের পানি: ত্বক হবে ব্রণমুক্ত ও উজ্জ্বল
নেইমার ইস্যুতে পিএসজি ছাড়বেন কাভানি!
ঘুরে দাঁড়াতে পারবে কী বাংলাদেশ?
দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে বাংলাদেশের সম্ভাব্য একাদশ